৫৯ টাকা ভ্যাট দিয়ে ১০ হাজার টাকা পুরস্কার

5

নিজস্ব প্রতিবেদক

নগরীর কোতোয়ালীর বাসিন্দা ওয়াজেদ আলী সদরঘাট এলাকার হোটেল ডিলাইটে খাওয়ার পর বিল দেন ১১৯০ টাকা। সে টাকার ভ্যাট আসে ৫৯ টাকা। তিনি সেখান থেকেই ইলেক্ট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) মেশিনের মাধ্যমে ৫৯ টাকা ভ্যাট প্রদান করেন। আর সে ভ্যাট দিয়েই পুরস্কার পেলেন ১০ হাজার টাকা।
একইভাবে রাউজানের অভিজিৎ দাশ নগরীর লালখান বাজার হাইওয়ে সুইটস থেকে ১৫৬৫ টাকার মিষ্টি কিনেন। তার ভ্যাট আসে ৭৮ টাকা। তিনিও তৎক্ষণাৎ ইএফডির মাধ্যমে ৭৮ টাকা ভ্যাট দিয়ে জিতে নেন ১০ হাজার টাকা পুরস্কার।
গতকাল বুধবার বিকালে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট চট্টগ্রামের সম্মেলন কক্ষে বিজয়ী দুইজনের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কমিশনার মোহাম্মদ আকবর হোসেন।
এসময় তিনি বলেন, বন্দর নগরী চট্টগ্রামে ৫২০টি মেশিনের পাশাপাশি আরও মেশিন স্থাপনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ক্রেতাদের কেনাকাটায় বিল পরিশোধের সময় বিক্রেতাকে ইএফডি হতে চালান বা ইনভয়েস ইস্যু করতে হয়। পুরো মাসে ইস্যুকৃত মোট চালান হতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে প্রতি মাসের ৫ তারিখে লটারির মাধ্যমে ১০১ জন ভাগ্যবান ক্রেতাকে পুরস্কারের জন্য নির্ধারণ করে। মূলত ক্রেতাকে ভ্যাট চালান গ্রহণে আগ্রহী করার জন্য এ লটারির ব্যবস্থা করা হয়।
জানা যায়, ক্রেতাদের বা ভ্যাটদাতাদের উৎসাহিত করতে প্রতি মাসের ৫ তারিখে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড একটি বিশেষ লটারির আয়োজন করেছে। এ লটারিতে ১০১টি পুরস্কারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
পুরস্কার বিতরণ সভায় কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত কমিশনার হাসান তারেক, যুগ্ম কমিশনার মুশফিকুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।