২৪.৪ ভাগ মানুষকে নিরক্ষর রেখে টেকসই উন্নয়ন দুরূহ

8

‘বাংলাদেশে বর্তমানে সাক্ষরতার হার ৭৫.৬ শতাংশ। এখনও ২৪.৪ শতাংশ মানুষ নিরক্ষর। সংখ্যার হিসেবে এটি বিশাল। বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীকে শিক্ষাবঞ্চিত রেখে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জন করা দূরূহ। সেইসাথে দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি এবং অব্যবস্থাপনা দূর করা গেলে শিক্ষায় শতভাগ সফলতা অর্জন করা সম্ভব’। উন্নয়ন সংগঠন যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থা (জেএসইউএস) ও গণসাক্ষরতা অভিযানের যৌথ বাস্তবায়নে গত মঙ্গলবার চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউটস্থ গ্যালারি হলে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন উপস্থিত অতিথিবৃন্দ। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ২০ নম্বর দেওয়ান বাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী। মানবকেন্দ্রিক সক্ষমতা পুনরুদ্ধারের জন্য সাক্ষরতা এবং ডিজিটাল দক্ষতার গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি, ডিজিটাল বিভাজন মোকাবেলায় যুব ও প্রাপ্তবয়স্কদের সাক্ষরতার জন্য নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে অ্যাডভোকেসি করার পাশাপাশি প্রযুক্তিনির্ভর সাক্ষরতা কর্মসূচির প্রসারে সরকার এবং উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার সহযোগিতার জন্য অ্যাডভোকেসি করার উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। জেএসইউএস এর ব্যবস্থাপনা উপদেষ্টা ও পরিচালক কবি সাঈদুল আরেফীনের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জেএসইউএস’র নির্বাহী পরিচালক ইয়াসমীন পারভীন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন নারী নেত্রী, উন্নয়ন সংগঠন ইলমা’র নির্বাহী পরিচালক জেসমিন সুলতানা পারু, সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের শিক্ষক-প্রশিক্ষক শামসুদ্দিন শিশির, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক অঞ্চল চৌধুরী। জেএসইউএস’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার (এসডিপি) আরিফুর রহমানের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন ব্রাইট বাংলাদেশ ফোরামের প্রধান নির্বাহী উৎপল বড়ুয়া, স্বপ্নীল’র প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ আলী শিকদার, স্যুট’র প্রধান নির্বাহী জেবুন্নেছা বেগম চৌধুরী, সাবেক অধ্যক্ষ উত্তম কুমার আচার্য্য, ড্যাম’র জেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো. তাইজুল ইসলাম, এসডিজি ইয়্যুথ ফোরামের সভাপতি নোমান উল্লাহ বাহার, এসএমসি সদস্য আনিস খোকন, শিক্ষক প্রতিনিধি প্রিয়া ভট্টাচার্য্য, কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম, প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী প্রতিনিধি মোস্তাকিমুর রহমান প্রমুখ। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন জেএসইউএস’র থানা প্রোগ্রাম ম্যানেজার (ওওএসসি) মাঞ্জুরুল আরেফীন।