২৩ বোতল মদ উদ্ধার, পালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতা

3

সন্দ্বীপ প্রতিনিধি

সন্দ্বীপের এনাম নাহার মোড় এলাকা থেকে ভারতীয় বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ২৩ বোতল মাদক উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত সোমবার দিনগতবার রাতে এ অভিযান চালানো হয়। এ ঘটনায় আবু তাহের (৩৮) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
আবু তাহের সন্দ্বীপ উপজেলার হারামিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। এ ঘটনায় পলাতক মো. ফয়সাল(৩০), হারামিয়া, ৮নং ওয়ার্ড পালিয়ে যায়। পলাতক মো. ফয়সাল ও গ্রেপ্তার আবু তাহের আসামি করে সন্দ্বীপ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রমজান আলী। জানা গেছে, মো. ফয়সাল (মারুফ হাসান ফয়সাল) উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ও স›দ্বীপ উপজেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক। এবং গ্রেপ্তারকৃত আসামি আবু তাহের পেশায় একজন অটোরিকশা চালক।
মামলার এজাহার জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সন্দ্বীপ থানার হারামিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডস্থ ন্যাশনাল এ্যালুমিনিয়াম নামক দোকানের সামনে রাস্তার দক্ষিণ পাশে কতিপয় লোক অবৈধ মাদক ক্রয় বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে জানতে পেরে সন্দ্বীপ থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আবু তাহেরকে আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে সে তার বাড়িতে অবৈধ বিদেশি মদ আছে বলে স্বীকার করে। পুলিশ তার ঘর থেকে ২৩ টি বিদেশী মদের বোতল জব্দ করে। পুলিশ জানায়, উদ্ধার করা মাদকের দাম প্রায় ১ লাখ ২৭ হাজার টাকা।
সন্দ্বীপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন বলেন, গতরাতে পুলিশের একটি টিম সন্দ্বীপব্যাপী অভিযান পরিচালনাকালে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে এনাম নাহার এলাকার একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ২৩ বোতল মদ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থলে উৎসুক মানুষের সামনে গ্রেপ্তার আবু তাহেরকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় সে বলেছে, ভাতিজা ফয়সাল বোতলগুলো তার কাছে রেখে গেছে। এই ঘটনায় দুইজনের নামে মামলা হয়েছে।
উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মাদক মামলার আসামি হওয়ার বিষয়ে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম বলেন, ‘ছাত্রলীগের কোনো ছেলে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকতে পারে না। যদি থাকে, সে যেই হোক না কেন। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাথে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’