২২ জনকে আসামি করে মামলা

31

লোহাগাড়ায় সংরক্ষিত বনবিভাগের ভ‚মিতে সৃজিত বাগানের জঙ্গল কাটা ও রক্ষণাবেক্ষণের সময় বনকর্মীদের বাধা প্রদান এবং বনদস্যু মোজাফ্ফরকে আটক করে নিয়ে আসার পথে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসময় ৫ বনকর্মী গুরতর আহত হয়।
গত শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার পুটিবিলা ইউনিয়নের পহরচাঁন্দা মাইল্যাকাটা নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহতরা হলেন, টংকাবতী বন বিটের ভিলেজার আবুল হোসেন (৪৫), বনকর্মী কানুরাম আচার্য্য (৩৭), ভিলেজার রেজাউল করিম (৩৬), ফরেস্ট গার্ড কাজ্বী আরিফুল ইসলাম (৩২) ও ফরেস্ট গার্ড তুষার সাহা (৩৫)।
এ ঘটনায় গতকাল রবিবার সকালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের পদুয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা সরওয়ার জাহান বাদী হয়ে এজাহারনামীয় ১০জনসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে লোহাগাড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম দক্ষিণ বনবিভাগের পদুয়া রেঞ্জের আওতাধীন পুটিবিলা পহরচাঁন্দা মৌজার খুইন্যাকাটা এলাকায় আর.এস দাগ নং ৭১৪ বি.এস দাগ নং-১১৮৭ এর সংরক্ষিত বনভূমিতে ২০১৮-১৯ সনে রাজস্ব খাতে সৃজিত বাগানে জঙ্গল কাটা ও রক্ষণাবেক্ষণ করতে গেলে বনদস্যু মোজাফ্ফরের নেতৃত্বে ১০/১২ জন সন্ত্রাসী অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে এবং কাজে বাধা প্রদান করে। এ সময় বনকর্মীরা তাদেরকে ধাওয়া করলে তারা গভীর জঙ্গলে ঢুকে পড়ে। এক পর্যায়ে মোজাফ্ফরকে আটক করে সিএনজি অটোরিকশা যোগে পদুয়া বন রেঞ্জ অফিসে নিয়ে আসা হয়। পথে পুটিবিলা পহরচাঁন্দা মাইল্লাকাটাস্থ কাঁচা রাস্তায় পৌঁছতেই পূর্ব থেকে অবস্থান নেওয়া ১০/১২জন পুরুষ ও মহিলা গাড়ির গতিরোধ করে দা, কিরিচ, লাঠি ও লোহার রড দিয়ে জখম করে মোজাফ্ফরকে ছিনিয়ে নেয়। এতে ফরেস্ট গার্ড গাজী আরিফুল ইসলাম, তুষার সাহা, রেজাউল করিম, বনপ্রজা কানুরাম আচার্য্য ও আবুল হোসেন গুরতর আহত হয়। এ সময় জানমালের নিরাপত্তা ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য রেঞ্জ কর্মকর্তা দুই রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি ছুড়লে আসামিরা পালিয়ে যায়। পরে আহতদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
এ ব্যাপারে পদুয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা সরওয়ার জাহান বলেন, এ ঘটনায় আমি বাদী হয়ে এজাহারনামীয় ১০জন এবং অজ্ঞতনামা আরো ১০/১২জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছি। আহত বনকর্মীরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আসামিদের বিরুদ্ধে গত ৩ অক্টোবর সাধারণ ডায়রি নং ১১৮ এবং বন মামলা নং-১২৬/২০১৯ দায়ের করা হয়েছিল।
এ ব্যাপারে লোহাগাড়া থানার ওসি মুহাম্মাদ সাইফুল ইসলাম বলেন, বনকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এ ঘটনায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। হামলাকারীদের আটক করতে চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না বলেও জানান তিনি।