‘হ্যাটট্রিকম্যান’ লি টাকের পাহারায় মানিক

37

টানা দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করা লি টাক হয়ে উঠতে পারেন চট্টগ্রাম আবাহনীর শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের শিরোপা পুনরুদ্ধারের পথে বড় বাঁধা। তবে স্বাগতিক দলের কোচ মারুফুল হক জানালেন, টেরেঙ্গানু এফসির এই ইংলিশ মিডফিল্ডারকে বোতলবন্দি রাখতে মানিক হোসেন মোল্লাকে নিয়ে ‘টপ সিক্রেট’ পরিকল্পনা সাজিয়ে রেখেছেন তিনি।
চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টায় শিরোপা লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে এই দুই দল।
গ্রæপ পর্বে মোহনবাগান ও সেমি-ফাইনালে গোকুলাম কেরালা এফসির বিপক্ষে মাঝমাঠ দারুণভাবে সামলানো মানিককে নিয়ে আগেও মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন মারুফুল। ফাইনাল সামনে রেখে তাকে দিলেন লি টাককে আটকানোর দায়িত্ব।
“এই আসরে লি টাক দুর্দান্ত পারফরম করছে। লিগেও ওকে দেখেছি। মালয়েশিয়ায় ও কেমন খেলে সেটা দেখিনি। তবে এখানে ওকে যেভাবে দেখছি ওর আরও বড় পর্যায়ে খেলা উচিত।”
“লি টাকের সেট-পিস ও ফ্রি কিক নিয়ে আমাদের পরিকল্পনা আছে। পেনাল্টি এরিয়ায় হয়তো ছেলেদের বলব-ভুল করা যাবে না।”
“ওদের একটা কম্বিনেশন আছে, শাইফিক, ব্রুনো সুজুকি ও লি টাককে নিয়ে। লি যখন ওপরে যায় তখন একজন হোল্ডিং মিডফিল্ডার ওদের মাঝমাঠ সামাল দেয়। এই কম্বিনেশনটা ভেঙে দিতে পারলে ওরা সুবিধা করতে পারবে না। আমি বলব লি টাক বনাম মানিক। টপ সিক্রেট।”

আবাহনীকে ‘ফেভারিট’ মেনে জয়ের ছক তেরেঙ্গানুর

মাঠের পারফরম্যান্স দুর্দান্ত। পাশাপাশি দর্শক, সমর্থক-সবই পক্ষে। সেমি-ফাইনালের পর প্রতিপক্ষের চেয়ে একদিন বেশি বিশ্রামও পেয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের ফাইনালে তাই ২০১৫ সালের চ্যাম্পিয়নদের ফেভারিট মানছেন তেরেঙ্গানু কোচ নাফুসি বিন মোহাম্মদ জাইন।
শিরোপা লড়াইয়ে প্রতিপক্ষকে ফেভারিট মানলেও শিরোপার স্বপ্ন দেখছেন তেরেঙ্গানু কোচ। বুধবার সংবাদ সম্মেলনে সে আশার কথাই শোনালেন তিনি।
“ফাইনালে ওঠায় আমি দল ও খেলোয়াড়দের নিয়ে খুশি। স্বাগতিকদের বিপক্ষে খেলা সহজ হবে না, কিন্তু ভালো একটা পারফরম্যান্স আশা করছি। চট্টগ্রাম ফেভারিট। কেননা, তারা নিজেদের মাঠে খেলবে, সেমি-ফাইনালের পর আমাদের চেয়ে একদিন বেশি বিশ্রাম পেয়েছে, ভালো প্রস্তুতি নিয়েছে। তবে আমি শিরোপা জিততে আশাবাদী।”
“ এই টুর্নামেন্টে আমরা তুলনামূলকভাবে আরও ভালো ফুটবল খেলেছি। ম্যাচ বাই ম্যাচ আমাদের উন্নতি হয়েছে। আশা করি, আগের মতো এ ম্যাচেও আমরা উন্নতির ধারায় থাকতে পারব। ফাইনাল চাপের ম্যাচ। কিন্তু ছেলেদের বলব-ম্যাচটা উপভোগ করো।”
দেশি-বিদেশি মিলিয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীকে শক্তিশালী দল বলেও মনে করেন টেরেঙ্গানু কোচ।
“তাদের দলে মানসম্পন্ন দেশি খেলোয়াড় আছে। আক্রমণভাগে আছে ভালো খেলোয়াড় এবং শক্তিশালী স্ট্রাইকার। মাঝমাঠ নিয়ন্ত্রণ করার মতো বিদেশি মিডফিল্ডার আছে। এটা আমাদের জন্য সহজ ম্যাচ নয়।”