হোয়াইটওয়াশ ওয়েস্ট ইন্ডিজ

9

শেষ ম্যাচেও দুর্দান্ত জয় তুলে নিল বাংলাদেশ। ব্যাটে-বলে কোনোখানেই পাত্তা পেল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গতকাল সোমবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১২০ রানে হারাল টাইগাররা। যার ফলে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটে ও দ্বিতীয় ম্যাচে ৭ উইকেটে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।
এদিন বাংলাদেশের দেয়া ২৯৮ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ওভারে ৪৪.২ ওভারে ১৭৭ রান করে অলআউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৭ রান করেন রভম্যান পাওয়েল। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৩টি, মোস্তাফিজুর রহমান ২টি, মেহেদী হাসান মিরাজ ২টি, তাসকিন আহমেদ ১টি ও সৌম্য সরকার ১টি করে উইকেট শিকার করেন।
ইনিংসের শুরুতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই ওপেনারকে সাজঘরে পাঠায় বাংলাদেশ। দুইটি উইকেটই নেন মোস্তাফিজ। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ওটলি। ৮ বলে ১ রান করেন তিনি। ষষ্ঠ ওভারে এলবিডবিউ হন সুনিল আমব্রিস। ১৪ বলে ১৩ রান করেন তিনি। ১৩তম ওভারে কাইল মায়ার্সকে এলবিডবিউয়ের ফাঁদে ফেরেন মিরাজ। সফরকারীদের দলীয় রান যখন ৭৯ তখন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদকে ফেরান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ৩৬ বলে ১৭ রান করে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন তিনি। ২৬তম ওভারে নিজের দ্বিতীয় শিকার করেন সাইফউদ্দিন। বোনারকে বোল্ড করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান তিনি। ৬৬ বলে ৩১ রান করেন বোনার। দলীয় ৯৩ রানে ৫টি উইকেট হারানোর পর পাওয়েল ও রেইফার প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও তাদের সফল হতে দেননি বাংলাদেশের বোলাররা। শেষমেশ ১৭৭ রানে তারা অলআউট হয়ে যায়। এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ২৯৭ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। দলের পক্ষে চারজন ব্যাটসম্যান হাফ সেঞ্চুরি করেন। তামিম ইকবাল ৬৪, মুশফিকুর রহিম ৬৪ ও মাহমুদউলাহ রিয়াদ ৬৪ রান করেন। ৫১ রান করেন সাকিব আল হাসান।
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মধ্যে আলহারি যোসেফ ২টি, কাইল মায়ার্স ২টি ও রেমন রেইফার ২টি করে উইকেট নেন। টানা তিন ম্যাচ জিতে ৩০টি মূল্যবান পয়েন্ট পেল টাইগাররা যা আগামী বিশ্বকাপে খেলার পথে একটা বড় অবদান রাখতে পারে।