হালিশহরে স্কুলছাত্রীকে তুলে নেয়ার অভিযোগ

37

নগরীর হালিশহরে একটি স্কুল এন্ড কলেজে নবম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত এক ছাত্রীকে স্কুল থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মো. আবু তালেব (২২) ওরফে ফাহিম নামে এক তরুণসহ অজ্ঞাতনামা আরও দুই-তিনজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে হালিশহর থানায় মামলা করেছেন। গত ৫ জানুয়ারি এ ঘটনা ঘটলেও গতকাল বুধবার পর্যন্ত পুলিশ আসামি গ্রেপ্তার কিংবা ভিকটিমকে উদ্ধার করতে পারেনি।
হালিশহর থানার ওসি আবুল কালাম জানান, এজাহারে আসামির বর্ণিত ঠিকানা ও তার অবস্থানসম্পর্কিত সম্ভাব্য কয়েকটি স্থানে ইতিমধ্যে পুলিশ অভিযান চালিয়েও কারও সন্ধান পায়নি। তবে, ভিকটিমকে উদ্ধার ও আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
এজাহারের বিবরণ অনুযায়ী, প্রতিদিনের মত গত ৫ জানুয়ারি ১৪ বছর বয়সী ওই স্কুলছাত্রী সকাল সাড়ে নয়টার দিকে স্কুলের উদ্দেশে বাসা থেকে বেরিয়ে যায়। বিকেলে নির্ধারিত সময়ে স্কুল ছুটির পরও সে বাসায় ফিরে না আসলে তার বাবা প্রথমে স্কুলে গিয়ে খোঁজ নেন। সেখানে না পেয়ে আত্মীয়-স্বজনদের সাথে মোবাইল ফোনে কল করে মেয়ের উপস্থিতির ব্যাপারে খবর জানতে চান। এ অবস্থায় নগরীর আছদগঞ্জ খুইল্ল্যা মিয়া মার্কেটের দক্ষিণে ইব্রাহিম সওদাগরের মালিকানাধীন ভবনের ভাড়াটিয়া মো. বেলালের ছেলে মো. আবু তালেব ওরফে ফাহিম নিজের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন থেকে কল করে ওই স্কুল ছাত্রীকে তুলে নেয়ার কথা তার বাবাকে জানায়।
স্থানীয় বাজারের দোকানদার ওই স্কুলছাত্রীর বাবা পূর্বদেশকে বলেন, ঘটনার দিন থেকে তিনি থানায় বিষয়টি জানিয়ে আসলেও দু’দিন পর পুলিশ তার অভিযোগ মামলা হিসেবে রেকর্ড করে। আসামিপক্ষ পুলিশের ওপর প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।