হাটহাজারীতে দুই রাইস মিলকে জরিমানা

17

ধান ভেঙে খাবারের চাল তৈরি করা হয় একটি রাইস মিলে। এরপর তা দেশের প্রসিদ্ধ কোনো ব্র্যান্ডের আদলে মোড়কজাত করে লেবেল লাগানো হয়। এসব ব্র্যান্ডের চাল কিনতে গিয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণার শিকার হচ্ছিল চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ক্রেতা সাধারণ।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে হাটহাজারী উপজেলার পৌরসভা এবং মেখল ইউনিয়নের সাত্তার ঘাট এলাকার তিনটি রাইস মিলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিট্রেস্ট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুহুল আমিন।
তিনি বলেন, রাইস মিলে পণ্য পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার নিশ্চিত করতে গিয়ে দেখি এক শ্রেণির অসাধু চাল ব্যবসায়ী রাইস মিলে ধান ভেঙে খাবারের চাল তৈরি করে বিক্রির জন্য পাটের ব্যাগ/বস্তা ব্যবহার না করে প্লাস্টিকের বস্তা ব্যবহার করছে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে পাটের ব্যাগ/বস্তা ব্যবহার না করার কারণে দুুই রাইস মিলকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং আড়াই হাজার প্লাস্টিকের বস্তা জব্দ করে ধ্বংস করা হয়।
তিনি আরও বলেন, এসব ব্যবসায়ীরা অধিক মুনাফা লাভের আশায় স্থানীয় কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করে রাইস মিলে তা ভেঙে বিক্রির জন্য খাবারের চাল তৈরি করে। পরে নামিদামি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নামে মোড়কজাত করছে। অথচ এসব খাবারের চাল তৈরি হচ্ছে স্থানীয় রাইসমিলে। এভাবে দীর্ঘ সময় ধরে প্রতারণার শিকার হচ্ছিল হাটহাজারী উপজেলার লোকজন।