সীরতুন্নবী মাহফিলের ১০ম দিন প্রত্যেক মুসলিমের জন্য দ্বীনের শিক্ষা নেয়া ফরজ

6

 

মসজিদের ইমাম ও খতিব, মাদ্রাসার শিক্ষক, মুরশিদ ও মাশায়েখে কেরাম, লেখালেখি ও রচনাকর্মের সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিবর্গ এবং অন্যান্য আলেম-ওলামাদের উপর ফরজ তা’লীম-তাদরীস, দাওয়াত ও তাবলীগ, ওয়াজ-নসীহত, তাযকিয়া-তারবিয়াত, বয়ান ও খুতবা, দ্বীনি কোনো প্রশ্নের উত্তর প্রদান। মোটকথা সকল দ্বীনি কাজে সর্বোচ্চ সতর্কতার পরিচয় দেওয়া, বিনা তাহকীকে কোনো কথা না বলা বা কিছু না লেখা। আর আম-মুসলিমদের কর্তব্য হলো, তারা ওলামায়ে কেরামের কাছ থেকে শিখবে এবং তাঁদের অনুসরণ করবে। কারণ, প্রত্যেক মুসলিমের ওপর নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী দ্বীনের শিক্ষা নেয়া ফরজ। দ্বীনি বিষয়ে আম-মুসলিমরা তাহকীক করতে যাবে না, রায় ও মতামত প্রকাশ করবে না এবং ওলামায়ে কেরামের ভুল ধরবে না। চুনতীর সীরতুন্নবী (সা.) মাহফিলের ১০ম দিনের অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।
২৭ অক্টোবর আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বান্দরবান ইসলামি শিক্ষাকেন্দ্রের শিক্ষা পরিচালক মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ নোমান, আনোয়ারা কাফকো জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুফতি আবুল হোছাইন ও চকরিয়া মারকাযুদ দা’ওয়াহ ওয়াল ইরশাদের পরিচালক মাওলানা মোস্তফা নুরী। অনুষ্ঠানের শুরুতে কালামে পাক থেকে তেলাওয়াত করেন মুহাম্মদ আনোয়ার সাদেক ও হাফেজ রবিউল হোছাইন। না’আতে রসূল (সা.) পরিবেশন করেন তালহা বিন দাউদ ও মাওলানা মুহাম্মদ ইউনুস আলী। ছদরে মাহফিল ছিলেন মাওলানা নুরুল আলম। চুনতী হাকিমিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ফারুক হোসেন ও মাওলানা জিয়াউল করিমের যৌথ পরিচালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, মাহফিল মোতওয়াল্লী পরিষদের সভাপতি শাহজাদা হাফিজুল ইসলাম আবুল কালাম আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাদা আব্দুল মালেক ইবনে দিনার নাজাত, মাহবুবুল হক, শাহজাদা তৈয়বুল হক বেদার, অলি উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি