সীতাকুন্ডে ট্রেনে কাটা পড়ে ৩ জন নিহত

97

সীতাকুন্ডে ট্রেনে কাটা পড়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় উপজেলার ভাটিয়ারি বানুবাজার পোর্টলিংক ডিপোর রেলওয়ে ক্রসিংয়ের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতদের একজন হলেন, ভাটিয়ারি ইমাম নগর এলাকার মফিজের পুত্র এরশাদ হাসান মিঠু (২৫)। তিনি পোর্টলিংক ডিপোর অফিস ক্লার্ক।
নিহত অন্যজন নগরীর বহদ্দারহাট সিদ্দিক টাওয়ার খাজা রোড এলাকার মীর আহাম্মদের পুত্র মো. মারুফ। তবে নিহত আরেকজনের পরিচয় জানা যায়নি।
গুরুতর আহত মো. মারুফকে নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সোয়া ১১টার দিকে তিনি মারা যান।
জানা গেছে, উপজেলার ভাটিয়ারি পোর্টলিংক রেলক্রসিংয়ের সামনে সোমবার সন্ধ্যায় ডিপোর কাজ শেষ করে বাড়ি ফিরছিল লোকজন। এ সময় চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা (ডাউন লাইন) ট্রেন অতিক্রম করার সময় অসাবধানতাবশত ঢাকামুখি (আপ লাইন) লাইনে উঠে পড়েন তারা। দ্রুতগতির ট্রেনে মুহূর্তে ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন হয়ে যান দুইজন। পরে স্থানীয়রা দেহাবশেষ উদ্ধার করে। এ সময় গুরুতর আহত হন মো. মারুফ।
এ ব্যাপারে জানতে ফৌজদার স্টেশন মাস্টারকে ফোন করলে তিনি ঢাকায় আছেন বলে জানান।
এদিকে পোর্টলিংক ডিপোর দায়িত্বে থাকা ভাটিয়ারির সাবেক চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার বলেন, ‘ঢাকামুখি ট্রেনটি পোর্টলিংক এলাকা অতিক্রম করার পর তারা রেল গেট নামানো অবস্থায় চট্টগ্রামুখি রেললাইনে উঠে পড়েন। এ সময় কিছু বুঝে উঠার আগে চট্টগ্রামমুখি ট্রেনে কাটা পড়ে দুইজনের দেহ ঘটনাস্থলে ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং একজন গুরুতর আহত হয়।
চট্টগ্রাম রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ওসি মোস্তাফিজ বলেন, আমি বিষয়টি অবগত হয়েছি। ঘটনাস্থলে ফৌজদারহাট পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই ইয়ার আলীকে পাঠিয়েছি।