সিত্তওয়েতে জান্তার হামলায় নিহত ১২

4

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তওয়েতে কোরিয়ান বন্দর বাজারে জান্তার নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ থেকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কামানের গোলা নিক্ষেপের ফলে ১২ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। ২৯ ফেব্রুয়ারি ইউনাইটেড লিগ অব আরাকান এবং আরাকান আর্মি এক যৌথ বিবৃতিতে এই তথ্য জানিয়েছে। এই ঘটনায় আরও ৮১ জন বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। তারা জানায়, জান্তা সৈন্যরা ইচ্ছাকৃতভাবে একটি জনাকীর্ণ বাজারে কামানের গোলা বর্ষণ করেছে। যদিও জান্তা এই হামলার জন্য আরাকান আর্মিকেই দায়ী করছে। এদিকে আরাকান আর্মি শিগগিরই রাখাইনের রাজধানী শহর আক্রমণ করতে পারে, এমন খবরে সিত্তওয়ের শহর ও গ্রামীণ উভয় এলাকা থেকে কয়েক হাজার স্থানীয় বাসিন্দা অন্য জায়গায় আশ্রয়ের সন্ধানে পালিয়েছে। স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, আরাকান আর্মি সিত্তওয়েকে দখল করবে এমন খবর শুনে তারা পালিয়ে যাচ্ছে।
বর্তমানে, আরও বেশি মানুষ মুক্ত এলাকায় চলে যাচ্ছে। জান্তা বাহিনী ইতিমধ্যেই ইয়াঙ্গুন-সিত্তওয়ে মহাসড়কের আহ মিন্ট কিয়ুন মিন চাউং ব্রিজটি মাইন দিয়ে ধ্বংস করেছে যাতে বিদ্রোহী যোদ্ধারা সিত্তওয়ে প্রবেশ করতে না পারে। এই ঘটনা জনসাধারণের উদ্বেগ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। তিনি আরও জানান, গুরুত্বপূর্ণ সেতুটি ধ্বংস করায় সিত্তওয়েবাসী কার্যত শহরটিতে আটকা পড়েছে। আসন্ন সংঘাত এড়িয়ে শহরবাসী নিরাপদে এলাকাটি ছেড়ে যেতে পারবে কি না এই ব্যাপারে তারা শঙ্কিত। তাই তারা সময় থাকতেই শহর ছাড়ছেন। শুধু বেসামরিক অধিবাসীরা নয়, সামরিক বাহিনীর সদস্যদের পারিবারের সদস্যরাও শহর ছাড়ছেন। শহরবাসীর শঙ্কা, সংঘাত শুরু হলে জান্তা বাহিনী বেসামরিক লোকজনদের জিম্মি হিসেবে ব্যবহার করবে।