সাম্প্রদায়িক উসকানির অভিযোগ নিয়ে হাইকোর্টে সালমান

4

বছর শুরুতে প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। তার পানভেলের ফার্ম হাউজের প্রতিবেশী কেতন কক্করের নামে এই মামলা করেছিলেন তিনি। এক সাক্ষাৎকারে ‘ভাইজান’র বিরুদ্ধে কেতন আপত্তি কর মন্তব্য করায় তখন মামলাটি করা হয়েছিল। তবে সালমানের সেই আবেদন খারিজ করে দেয় মুম্বাইয়ের সিটি সিভিল কোর্ট। এই রায়ের বিরুদ্ধেই আবার মুম্বাই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন ‘ভাইজান’। মানহানির সঙ্গে এবার প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে সা¤প্রদায়িক উসকানির অভিযোগও এনেছেন তিনি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে সালমানের আইনজীবীর রবি কদম জানায়, প্রতিবেশী কেতন সালমানের খামারবাড়ির পাশে জমি নেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। জমির লেনদেন অবৈধ হওয়ায় বারবার তা বাতিল করা হচ্ছিল। যে কারণে তিনি সালমান ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে নানা ধরনের মিথ্যা অভিযোগ তুলতে শুরু করেন।
মুম্বাই হাইকোর্টের মানহানির পাশাপাশি কেতন কক্করের বিরুদ্ধে সা¤প্রদায়িক উসকানিমূলক কাজকর্মের অভিযোগ আনা হয়েছে। সালমান ও কেতনের আইনজীবীর মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ তর্ক হয়। দুই পক্ষের বক্তব্য শোনার পর আগামী ২২ আগস্ট মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত। জানা যায়, সালমানের পানভেলের ফার্ম হাউজের কাছের একটি জমির মালিক কেতন। একটি ইউটিউব চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় অভিনেতার নামে মানহানিকর কথা বলেন তিনি। কেতন দাবি করেন, পানভেলের ফার্ম হাউসে প্রকাশ্যে বেআইনি কার্যকলাপ ঘটে।
সালমান নাকি ফার্ম হাউস থেকে শিশুপাচার করেন এবং সেখানে বহু বলিউড অভিনেতাদের মৃতদেহ পোঁতা রয়েছে! এরপরেই ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে সুপারস্টারের আইনজীবী।