সম্মেলনসহ নতুন কমিটি গঠনের নির্দেশনা আসছে

12

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম উত্তর, দক্ষিণ ও মহানগর আওয়ামী যুবলীগের পৃথক বর্ধিত সভা পিছিয়ে ২৮-৩০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ২৫-২৭ নভেম্বর পর্যন্ত তিন ইউনিটের পৃথক বর্ধিত সভা অনুষ্ঠানের কথা ছিল। পরিবর্তিত সময়সূচি অনুযায়ী দক্ষিণ জেলার বর্ধিত সভা ২৮ নভেম্বর, উত্তর জেলার ২৯ নভেম্বর ও মহানগরে ৩০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন চট্টগ্রামের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার শেখ নাঈম। এছাড়াও সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগসহ কেন্দ্রীয় কমিটিতে আসা চট্টগ্রামের নেতারাও উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে। জানা যায়, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা ২৮ নভেম্বর দুপুর ২টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে, উত্তর জেলার বর্ধিত সভা ২৯ নভেম্বর দুপুর ২টায় দোস্ত বিল্ডিং দলীয় কার্যালয়ে ও মহানগর যুবলীগের বর্ধিত সভা ৩০ নভেম্বর চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে অনুষ্ঠিত হবে।
দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সভাপতি আ ম ম টিপু সুলতান চৌধুরী পূর্বদেশকে বলেন, আগামী ২৮ নভেম্বর দক্ষিণ জেলার বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হবে। এ সভা থেকে জেলার সাংগঠনিক বিষয়াদি জানতে চাইবেন কেন্দ্রীয় নেতারা এবং সম্মেলনসহ সাংগঠনিক গতি বাড়ানোর নির্দেশনা দিতে পারেন।
উত্তর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এইচএম রাশেদুল আলম পূর্বদেশকে বলেন, ‘উত্তর জেলায় ২৯ নভেম্বর বর্ধিত সভা হবে। সেই সভায় তৃণমূল থেকে সংগঠনকে শক্তিশালী করার জন্য কেন্দ্র যে নির্দেশনা দিবে তাই পালন করবো। আমরা নির্দিষ্ট টার্গেট নিয়ে তৃণমূলে সম্মেলনের মাধ্যমে ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলার সম্মেলন করার মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।’
মহানগর আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহব্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকা পূর্বদেশকে বলেন, প্রথমে ২৫-২৭ নভেম্বর পর্যন্ত তিন জেলার বর্ধিত সভার তারিখ ছিল। সেসময় আমরা ২৭ নভেম্বর বর্ধিত সভার আয়োজন করেছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে সময় পেছানোয় আমরা ৩০ নভেম্বর করছি। এ বর্ধিত সভা থেকে সাংগঠনিক বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দিবেন কেন্দ্রীয় নেতারা। দলীয় সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ১৩ জুলাই চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের ১০১ সদস্যের আহব্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। ২০০৩ সালে সর্বশেষ মফিজ উদ্দিনকে সভাপতি ও শফিউল আজমকে সাধারণ সম্পাদক করে উত্তর জেলা যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়। ২০১২ সালে কেন্দ্রীয় যুবলীগের পক্ষ থেকে সীতাকুন্ডের এসএম আল মামুনকে সভাপতি ও হাটহাজারীর এইচএম রাশেদুল আলমকে সাধারণ সম্পাদক করে এ কমিটি পুনর্গঠিত করা হয়। ২০১০ সালে আ ম ম টিপু সুলতান চৌধুরীকে সভাপতি ও পার্থ সারথি চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের কমিটি করা হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ এ তিন কমিটি ৮, ৯ ও ১১ বছরের পুরানো।
গত সেপ্টেম্বরে পার্বত্য চট্টগ্রামের খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবানে বর্ধিত সভা করে কেন্দ্রীয় টিম। সেসময় তিন জেলার সভায় উপস্থিত হয়ে চট্টগ্রামের বর্ধিত সভা করার ঘোষণা দিয়েছিলেন যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক ব্যারিস্টার শেখ নাঈম। সেসময় তিনি বলেন, ‘প্রতিটি ইউনিটে সম্মেলন করে সাংগঠনিক গতি বাড়ানো হবে। একই সাথে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে যুবলীগকে উজ্জীবিত করতেই বর্ধিত সভার মাধ্যমে তৃণমূলে বার্তা দেয়া হচ্ছে।’