সম্পর্ক জোরদারে ঢাকায় মার্কিন প্রতিনিধি

8

পূর্বদেশ ডেস্ক

কূটনৈতিক সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করতে যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে এসেছে। তিন দিনের সফরে প্রতিনিধি দলটি গতকাল শনিবার ঢাকায় পৌঁছেছে বলে মার্কিন দূতাবাস এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে। এই দলে রয়েছেন- মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিশেষ সহকারী, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের (এনএসসি) দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক সিনিয়র ডিরেক্টর আইলিন লাউবাকার, ইউএসএইড সহকারী প্রশাসক ও এশিয়া ব্যুরো মাইকেল শিফার এবং যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আখতার। খবর বিডিনিউজের।
২৪-২৬ ফেব্রæয়ারি তাদের সফরে বাংলাদেশের সঙ্গে ক‚টনৈতিক সম্পর্ক শক্তিশালী করতে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের পর গঠিত সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হবে। দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের সঙ্গে ক‚টনৈতিক বন্ধন শক্তিশালী করার উপায়, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে উভয়ের স্বার্থন্নোয়নে পারস্পরিক দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরবে। সফরে তরুণ অধিকারকর্মী, সুশীল সমাজের নেতা, শ্রম সংগঠন এবং সেন্সরবিহীন গণমাধ্যমের বিকাশে যুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গেও প্রতিনিধি দল বৈঠক করবে বলে বাসস জানিয়েছে।
মার্কিন দূতাবাস বলেছে, উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিকের ব্যাপারে পারস্পরিক লক্ষ্যকে এগিয়ে নিতে, মানবাধিকার সুরক্ষা, জলবায়ু সমস্যা মোকাবিলা, বহুজাতিক হুমকির বিপরীতে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার উন্নয়ন এবং অর্থনৈতিক সংষ্কারকে এগিয়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সঙ্গে প্রতিশ্রæতিবদ্ধ।
আওয়ামী লীগের টানা চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠনের পর প্রথম উচ্চ পর্যায়ের সফরে ঢাকায় এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল। এই সফর দুই দেশের সম্পর্ক আরও গভীর ও বিস্তৃত করতে ভূমিকা রাখবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।
টানা চতুর্থবারের মত ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।
বিষয়টি নিয়ে হাছান মাহমুদ জানান, জো বাইডেনের ওই চিঠি দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।
এর আগে গত বছরের ১৬ অক্টোবর ঢাকায় এসেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আখতার। সেসময় বাংলাদেশের নির্বাচন প্রসঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পও পরিদর্শন করেন।