সত্যতা যাচাইয়ের আগে গুজবে কান দেবেন না

89

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপ-মন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, অনুমতি ছাড়া কোনো বিদ্যালয়ে খাবার পরিবেশন করা যাবে না। নিয়ম ভেঙে এ ধরনের অন্যায় করলে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। সাংগঠনিক পরিমÐলের বাইরে গিয়ে বিদ্যালয় বা অন্যকোথাও খাবার পরিবেশন করার এখতিয়ার কারো নেই। গতকাল নিজের ফেসবুক ভেরিফাইড পেজে এমন পোস্ট করেন নওফেল।
তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক অসত্য তথ্য প্রচার হয়, অনেক গুজব রটানো হয়, অনেক ভিডিও ভাইরাল হয়। তাই সত্যতা যাচাইয়ের আগে এসব গুজবে কান দেবেন না। কিছুদিন আগে ইসকন নামে একটি ধর্মীয় সংস্থা একটি বিদ্যালয়ে খাদ্য বিতরণ করে। তারপর একটি ভিডিও ভাইরাল করে গুজব রটানো হলো সেখানকার শিশুদের ধর্মবর্ণ নির্বিশেষ সনাতন ধর্মীয় স্লোগান দেয়া হয়েছে। যেহেতু অভিযোগ এসেছে, ভিডিও ক্লিপের বিষয়ে আমরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীর সহযোগিতায় তদন্ত করে দেখবো ঘটনার সত্যতার বিষয়ে এবং ঘটনাস্থল কোথায়?
তিনি বলেন, সত্য প্রমাণ হলে অবশ্যই অনুমোদন ব্যতীত বিদ্যালয়ে খাদ্য পরিবেশনে দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে প্রাথমিক তথ্য থেকে জানা গেছে, অন্য ধর্মের কেউ ইসকনের এ ভিডিওতে ছিল না এবং এটি একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যেই রেকর্ডকৃত।
উপ-মন্ত্রী নওফেল বলেন, তবুও আমরা নির্দেশ দিয়েছি কোন ধর্মীয় বা সামাজিক প্রতিষ্ঠান সরকারের অনুমতি ব্যতীত কোন বিদ্যালয়ে খাদ্য পরিবেশ করতে পারবে না। এ বিষয়ে আমরা আরও কঠোরভাবে মনিটরিং করবো। এ ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হওয়ার পর কিছু সংগঠন প্রতিবাদ করছে চট্টগ্রামে। আমরা তাদের অনেকের সাথে কথা বলেছি। তাদেরকে বলেছি, ভিডিওর বিষয়ে আমরা গভীর তদন্ত করছি। সকলের প্রতি আহŸান, তদন্ত প্রতিবেদনের আগে যেন এটি নিয়ে ইস্যু সৃষ্টি করা না হয়। এর আগেও আমরা দেখেছি এক শ্রেণির অপপ্রচারকারী, যারা অপরাজনীতির মাধ্যমে এই ধরনের বিভ্রান্তি থেকে ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা করেছে।
অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতি এড়ানোর অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ধর্মীয় বা অন্য কোন সংগঠন যদি খাদ্য পরিবেশন করেন, তাহলে তা সাংগঠনিক পরিমÐলেই রাখবেন। অযথা গুজব, প্রচার-অপপ্রচারের শিকার হওয়ার প্রয়োজন নেই। অনুমোদন ব্যতীত খাদ্য পরিবেশ কোন বিদ্যালয়ে করা যাবে না। নিয়ম ভাঙলে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। তাই প্রতিবাদ করার সাংবিধানিক অধিকারের প্রতি সম্মান রেখেই বলছি, দয়া করে কারো পাতা ফাঁদে পা দেবেন না।