শেষ দিনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন ১৬৩ প্রার্থী

36

নিজস্ব প্রতিবেদক

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষদিন। এতে আওয়ামী লীগসহ নিবন্ধিত বিভিন্ন রাজনৈতিক দল মনোনীত এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। এ উপলক্ষে এসব স্থানে উৎসবের আমেজ বিরাজ করে। প্রার্থীদের সাথে বিপুল সংখ্যক তাদের কর্মী-সমর্থক এবং দলীয় নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ইউনুচ আলী জানান, গতকাল মনোনয়ন পত্র জমা দেয়ার শেষ দিনে ১৬৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

হাটহাজারীতে আ.লীগ প্রার্থী এম এ সালামের মনোনয়ন জমা
জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী ও চসিকের ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী এবং ২নং জালালাবাদ ওয়ার্ড) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মোহাম্মদ আবদুস সালাম গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এসময় চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মোহাম্মদ মঈনুদ্দিন, উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাশেম, উপদেষ্টা সিরাজ উদ দৌল্লাহ চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবুল কদর, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট মোহাম্মদ আলী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জাফর আহমেদ, দিদারুল আলম বাবুল, শওকতুল আলম, মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন চৌধুরী নোমান, উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম রাশেদুল আলমসহ হাটহাজারীর বিভিন্ন ইউপির চেয়ারম্যানবৃন্দ, হাটহাজারী উপজেলা, চসিকের ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী ও ২নং জালালাবাদ ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ তাঁর সাথে ছিলেন।

পটিয়ায় ১০ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল
চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বর্তমান এমপি জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী মনোনয়ন ফরম দাখিল করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন দল এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আরো ৮ জনসহ মোট ১০ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম দাখিল করেন। অন্য প্রার্থীরা হলেন জাতীয় পার্টি থেকে মোহাম্মদ নুরুচ্ছফা সরকার, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ থেকে কাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, বাংলাদেশ ইসলামি ফ্রন্ট থেকে এম এ মতিন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন থেকে এম ইয়াকুব আলী, তৃণমূল বিএনপি থেকে বাজিব চৌধুরী, বাংলাদেশ কংগ্রেস থেকে সৈয়দ মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন জিহাদী, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ ইলিয়াছ মিয়া ও গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী মনোনয়ন ফরম জমা দেন।

ফটিকছড়িতে ১২ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা
চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) প্রার্থীগণ গতকাল উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেছেন। গতকাল সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো মোজাম্মেল হক চৌধুরীর কাছে মনোনয়ন দাখিল করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খাদিজাতুল আনোয়ার সনি এমপি, স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হোসাইন মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম নওশের আলী। তাছাড়া রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মো. ফখরুজ্জামানের নিকট মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের (বিটিএফ) চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী এমপি, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির (বিএসপি) চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভান্ডারী।
সহকারী রির্টানিং অফিসার ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী জানান, চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি আসনে উপজেলা ও জেলা কার্যালয়ে মোট ১২ প্রার্থী মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।

সীতাকুন্ডে মনোনয়ন জমা দিলেন ৯ প্রার্থী
আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম-৪ সংসদীয় আসনে মনোনয়ন দাখিল করেছেন ৯ জন। এদের মধ্যে উপজেলা সহকারি রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সীতাকুন্ডে মনোনয়ন দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এস.এম আল মামুন ও ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের মো. মোজাম্মেল হোসেন। বাকি ৭ জন মনোনয়ন দাখিল করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ে। বিভাগীয় কার্যালয়ে মনোনয়ন দাখিল করেছেন বর্তমান এমপি স্বতন্ত্র প্রার্থী দিদারুল আলম, জাতীয় পাটি লাঙ্গল প্রতীকের দিদারুল কবির দিদার, তৃণমূল বিএনপির খোকন চৌধুরী, বিএনএফ মোহাম্মদ আকতার হোসেন, মোহাম্মদ ইমরান, মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম চৌধুরী ও সালাউদ্দিন।

চট্টগ্রাম-১৫ আসনে মনোনয়ন জমা দিলেন মোতালেব
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এম.এ মোতালেব সিআইপি। গতকাল বৃহস্পতিবার সাতকানিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিল্টন বিশ্বাসের নিকট মনোনয়নপত্র জমা দেন তিনি। মোতালেবের মনোনয়নপত্র জমাদানের সময় সাথে ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আ.ম.ম মিনহাজুর রহমান, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি খোরশেদ আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন হীরু, সাতকানিয়া পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ জোবায়ের, লোহাগাড়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি রিদওয়ানুল হক সুজন।
অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য শহিদুল কবির সেলিম, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম সিকদার, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, আমিলাইশ ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক চৌধুরী, এওচিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু সালেহ, কাঞ্চনা ইউপি চেয়ারম্যান রমজান আলী, সাতকানিয়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম, সোনাকানিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, বাজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাপস দত্ত, কেওচিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ওচমান আলী, ধর্মপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাছির উদ্দীন টিপু, পুরাণগড়ের আ ফ ম মাহবুবুল হক সিকদার, পশ্চিম ঢেমশা ইউপি চেয়ারম্যান রিদুয়ানুল হক সুমন, সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মোহাম্মদ আলীসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

ঢাকা-১৪ ও চট্টগ্রাম-২ আসনে মনোনয়ন জমা বিএসপি চেয়ারম্যানের
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসন থেকে বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির চেয়ারম্যান শাহজাদা ড. সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমদ মাইজভান্ডারী মনোনয়নপত্র জমা দেন। তাছাড়া সেগুন বাগিচা রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট বিএসপি চেয়ারম্যানের পক্ষে ঢাকা-১৪ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া হয়। এছাড়া বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির মনোনীত ১২৫ আসনে মনোনয়ন জমা দেওয়া হয়।

চট্টগ্রাম-১০ আসনে মনোনয়ন জমা স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদ মাহমুদের
দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১০ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ মাহমুদ। গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এসময় প্রার্থীর প্রস্তাবক চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সহ সভাপতি মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন চৌধুরী, সমর্থক জাকির হোসেন রিপন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন রানা নাসির, শওকত হোসেন, মুজিব মোহাম্মদ শাহেদ, সামসুল হুদা, আমির মোহাম্মদ বেলাল, ফিরোজ আলম সবুজ, মোহাম্মদ আক্তারুজ্জামান আক্কাস, মোহাইমিন ইসলাম সোহেল, আলি আকবর, কামরুল ইসলাম, মহানগর যুবলীগের সাবেক নেতা নেছার আহমেদ, ওয়াহিদ হাসান, শেখ নাছির আহমেদ, বখতেয়ার ফারুক, আশরাফুল গনি, দেলোয়ার হোসেন দেলু, রাশেদ চৌধুরী, নাজমুল হাসান রুমি, জাহেদুল ইসলাম সুমন, মো. আজাদ হোসেন প্রমুখ।

চট্টগ্রাম-১০ এ স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন মনজুর আলম
বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ঘোষিত সময় অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বিভাগীয় কমিশনার কাযালয়ে চট্টগ্রাম-১০ নির্বাচনী এলাকা থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মনজুর আলম মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তাঁর পক্ষে পুত্র মোহাম্মদ নিজামুল আলম, মোহাম্মদ সরোয়ার আলম, মোহাম্মদ ফারুক আজম, মোহাম্মদ সাইফুল আলম, মোহাম্মদ সাহিদুল আলম, প্রস্তাবকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাদি, সমর্থনকারী আব্দুল করিম, মোহাম্মদ ইদ্রিস, আব্দুল হাকিম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ হারিছ, মাওলানা মতিউর রহমান, মাওলানা সৈয়দ বশির উল্লাহ, দিদারুল আলম, জাহিদুল আলমকে নিয়ে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার দপ্তরে মনোনয়নপত্র দাখিল করা হয়। এদিকে সকালে দেওয়ানহাটস্থ মোস্তফা হাকিম শিল্প গ্রæপের করপোরেট ভবনে মনোনয়ন দাখিল উপলক্ষে খতমে কোরানে পাক, খতমে বোখারী শরীফ, দোয়া, মিলাদ মাহফিল, বিশেষ মোজনাত এবং আলেম ওলামাদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রাম-৮ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন আবদুচ ছালাম
আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-৮ বোয়ালখালী-চান্দগাঁও-পাঁচলাইশ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। গতকাল বৃহষ্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে কর্মীদের সাথে নিয়ে আবদুচ ছালাম বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে গিয়ে বিভাগীয় কমিশনার মো. তোফায়েল ইসলামের হাতে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।
মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নির্দেশনা মোতাবেক দলীয় কৌশলের অংশ হিসেবে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রমুখী করতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। সকলের ভোট ও দোয়ায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতাকে কাজে লাগিয়ে আমি আমাদের প্রাণের দাবি আধুনিক কালুরঘাট সেতু নির্মাণকে সর্বাগ্রে প্রাধান্য দিয়ে এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নের দ্রুত বাস্তবায়ন করতে পারব।