শেখ হাসিনাকে পুতিন-রুহানি ও সোনিয়ার অভিনন্দন

55

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, ভারতের কংগ্রেস সংসদীয় দলের পার্টির চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধী এবং ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি।
বুধবার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে ফলাফল প্রকাশের পর সোমবার (৩১ ডিসেম্বর) সকালে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোনে প্রথম কোনো সরকার বা রাষ্ট্র প্রধান হিসেবে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এরপর টুইটার বার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এছাড়া নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ায় চীনের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী, সৌদি আরবের বাদশা ও যুবরাজ, কাতারের আমির, ভুটানের রাজা ও প্রধানমন্ত্রী, নেপালের প্রধানমন্ত্রী, শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট, ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট আওয়ামী লীগের বিজয়ে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।
অভিনন্দন বার্তায় সোনিয়া গান্ধী বলেছেন, আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয় হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিজ্ঞ ও দূরদৃষ্টি সম্পন্ন নেতৃত্বের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের আস্থা। এই নেতা বলেন, ‘আপনার (শেখ হাসিনা) সম্মানীত ও প্রিয় বাবা, আপনাকে নিয়ে গর্ববোধ করতেন। এই আনন্দঘন মূহুর্তে আওয়ামী লীগে আপনার সহকর্মীদের কাছে কংগ্রেস পার্টির উষ্ণ শুভেচ্ছা পৌঁছে দিবেন। আপনার জয়ে অবশ্যই আমি ব্যক্তিগতভাবে আনন্দিত হয়েছি, আমাদের মধ্যে খুবই ঘনিষ্ঠ ও বিশেষ পারিবারিক বন্ধন রয়েছে। কিন্তু এটা এমন একটি ফলাফল, যা সকল ভারতীয়ই উদযাপন করবে-আমাদের পারস্পরিক স্বার্থে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে আপনি অনেক করেছেন। আমরা জানি, আপনার নেতৃত্বে এই বন্ধুত্বের ভিত্তিতে আমরা আরো অগ্রসর হতে থাকবো।’
বুধবার ঢাকাস্থ ইরান দূতাবাস থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শুভেচ্ছা বার্তায় রুহানি বলেন, ‘সর্বস্তরের জনগণের অংশগ্রহণ এই সাফল্যকে সম্ভবপর করেছে এবং এতে আপনার নেতৃত্বের প্রতি জনগণের আস্থার প্রকাশ ঘটেছে। মুসলিম বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ও প্রভাবশালী এই দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আগামী দিনগুলোতে আরও বিস্তৃত হবে।’ ইরানের প্রেসিডেন্ট তার এই বার্তায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও জনগণের কল্যাণ ও সফলতা কামনা করেছেন।