শিবির সন্দেহে শিক্ষার্থীকে মারধর ছাত্রলীগের

61

শিবির সন্দেহে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এমবিএ’র মৌখিক পরীক্ষা চলাকালে ইমরান মক্কী নামে এক শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। ফেসবুকে সরকারবিরোধী কয়েকটি স্ট্যাটাস দেওয়ার জেরে তাকে মারধর করা হয় বলে জানা গেছে।
গতকাল বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের দ্বিতীয় তলায় ম্যানেজমেন্ট বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। ইমরান ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। এ সময় শিবির সন্দেহে তার সহপাঠী আব্দুল মালেককেও প্রক্টর অফিসে আনা হয়। পরে তাদের দু’জনকেই হাটহাজারী থানা পুলিশে সোপর্দ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
মারধরকারীরা সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও চবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, মৌখিক পরীক্ষা দিয়ে বের হলে ছাত্রলীগের বগি ভিত্তিক উপগ্রূপ ‘সিক্সটি নাইনের’ সাইদুল ইসলাম সাঈদ ও রাজু মুনশীর নেতৃত্বে একদল ছাত্রলীগকর্মী ইমরানকে মারধর শুরু করে। এছাড়া শিক্ষকদের সঙ্গেও বাকবিতন্ডায় জড়ায় তারা। এ সময় শিক্ষার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়লে কিছু সময়ের জন্য মৌখিক পরীক্ষা স্থগিত রাখা হয়। পরে বিভাগের শিক্ষকরা প্রক্টর অফিসকে জানালে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে। পরে ইমরানের সহপাঠী একই বিভাগের ছাত্র আব্দুল মালেককেও প্রক্টর অফিসে আনা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশে সোপর্দ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
চবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, ‘শুনেছি শিবিরের দু’জনকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। একজনের বিরুদ্ধে চকবাজার থানায় রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাও রয়েছে। কেউ অপরাধ করলে ব্যবস্থা নেওয়ার দায়িত্ব পুলিশের। এক শিক্ষার্থীর গায়ে অন্য কারো হাত দেওয়ার অধিকার নেই। কারা এমনটা করেছে আমরা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেব।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসান বলেন, ‘ইমরান নামে এক ছাত্রকে মারধরের খবর পেয়ে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। ছাত্রদের একটি পক্ষের অভিযোগ তিনি শিবিরের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। পরে তার এক বন্ধুকেও আমরা হেফাজতে নিয়ে আসি। তাদেরকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে পুলিশকে।’
হাটহাজারী মডেল থানার ওসি মাসুদ আলম বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রকে থানা হেফাজতে হস্তান্তর করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের বিরুদ্ধে মূল অভিযোগ। আমরা বিষয়গুলো যাচাই-বাছাই করে দেখছি।’