শিকলবাহা খালে নিখোঁজ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

6

পটিয়া উপজেলার শিকলবাহা খালে বাল্কহেড (নৌযান) ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ দুই শ্রমিকের মধ্যে এক শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম আবুল কালাম মুন্সি (৪৫)। তিনি সুনামগঞ্জ জেলার চরউরিয়া গ্রামের ছৈয়দ আহমদের পুত্র।
গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় সদরঘাট নৌ-পুলিশের ডুবুরিদল ওই শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করেন।
উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার ভোরে পটিয়ার পুরনো কালারপোল সেতুর ভাঙা ডুবন্ত পিলারের সাথে ধাক্কা লেগে পাথর বোঝাই একটি বাল্কহেড ডুবে যায়। এসময় বাল্কহেডে ঘুমন্ত দুজন শ্রমিক নিখোঁজ হন।
সূত্র জানায়, পটিয়া-আনোয়ারা সীমান্তে নির্মাণাধীন কালীগঞ্জ সেতুর জন্য নগরীর মাঝিরঘাট থেকে ৭০০ টন পাথর নিয়ে গত মঙ্গলবার সকালে বাল্ডহেড (নৌযান) রওনা হয়। পাথর বোঝাই নৌযানটি শিকলবাহা খালের কালারপুল সেতু এলাকায় পৌঁছালে পুরনো একটি পিলারের সঙ্গে লেগে ছিদ্র হয়ে ডুবে যায়। ওই সময় নৌযানে ২৪ জন শ্রমিক ও ৫ জন স্টাফ ছিলো। তাদের মধ্যে নিখোঁজ দুই শ্রমিকের একজন কামাল মুন্সির মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
সদরঘাট নৌ-পুলিশের এএসআই রনি খন্দকার জানিয়েছেন, পাথর বোঝাই নৌযান ডুবে শ্রমিক নিখোঁজের ঘটনায় এক শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জোয়ারে খালে পানি পরিপূর্ণ থাকায় অভিযান সাময়িক বন্ধ রয়েছে। তবে ভাটায় পানি কমে গেলে পরবর্তীতে উদ্ধার কার্যক্রম চালানো হবে।