লিটারে ৫ টাকা কমেছে সয়াবিন তেলের দাম

13

নিজস্ব প্রতিবেদক

আগের দফায় দাম নির্ধারণ নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যে এবার সয়াবিন তেলের নতুন দর ঠিক করে দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়; এতে বর্তমান বাজারদরের চেয়ে দাম কিছুটা কমানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য শাখা-৫ এক প্রজ্ঞাপনে নতুন মূল্য ঘোষণা করে, যা আগামি ১৮ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হবে। এতে বলা হয়, নতুন দর অনুযায়ী প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হবে সর্বোচ্চ ১৬৭ টাকায়, যা এতদিন ১৭২ টাকা নির্ধারিত ছিল।
আর বোতলজাত সয়াবিন তেল প্রতি লিটার সর্বোচ্চ ১৮৭ টাকায় বিক্রি হবে, যা এতদিন ১৯২ টাকায় নির্ধারিত ছিল। সয়াবিন তেলের ৫ লিটারের বোতল বিক্রি হবে সর্বোচ্চ ৯০৬ টাকায়, যা এতোদিন ৯২৫ টাকায় নির্ধারিত ছিল।
এছাড়া পাম তেল প্রতিলিটার বিক্রি হবে ১১৭ টাকায়, যা এতদিন ১২১ টাকায় নির্ধারিত ছিল।
প্রজ্ঞাপনের দেওয়া মূল্য তালিকার হিসাবে, প্রতি লিটার সয়াবিনে দাম কমেছে ৫ টাকা এবং পাম তেলে ৪ টাকা।
খুচরা বাজারে সরবরাহ সংকটের মধ্যে সয়াবিন তেলের দাম বাড়ানো নিয়ে মাস খানেক আগে ধোঁয়াশা তৈরি হয়। গত ১৭ নভেম্বর মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত আসার আগেই ভোজ্য তেল ও চিনি পরিশোধনকারী কোম্পানিগুলোর সংগঠন সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ১২ টাকা বাড়িয়ে ১৯০ টাকা এবং চিনির দাম কেজিতে ১৩ টাকা বাড়িয়ে ১০৮ টাকা (প্যাকেট) করার ঘোষণা দেন। এ দরে তারা বাজারে সরবরাহ করলেও তখন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।
গতকাল বৃহস্পতিবারের প্রজ্ঞাপনে সবশেষ নতুন দর ও এর আগের নির্ধারিত দরের তথ্য তুলে ধরা হয়।
নভেম্বরের মাঝামাঝিতে দাম নির্ধারণ নিয়ে অস্পষ্টতার মধ্যে তখন বাজারে তেলের সংকটও দেখা যায়। অনেক বাজারের দোকানগুলোতে তেল পাওয়া যাচ্ছিল না।
দাম বাড়ানো নিয়ে মন্ত্রণালয়ের নিরব থাকার মধ্যে তেল পরিশোধনকারী কোম্পানিগুলো নিজেরাই দাম বাড়িয়ে প্রতিলিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৯২ টাকা এবং খোলা সয়াবিন তেল বিভিন্ন দামে বিক্রি করতে শুরু করে।
গতকাল বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের আমদানি, মজুদ ও মূল্য পর্যালোচনায় গত ১৩ ডিসেম্বর মন্ত্রণালয়ে সভা হয়। সেই সভার সিদ্ধান্তের আলোকে নতুন মূল্য ঘোষণা করা হয়েছে।