লবণ চাষিদের সমস্যা হয় এমন সিদ্ধান্ত সরকার কখনো নেবে না

18

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, লবণ চাষীরা যাতে লবণের ন্যায্য মূল্য পায় সেজন্য বিদেশ থেকে লবণ আমদানি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করার জন্য আমি বাণিজ্যমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ জানাবো। লবণ চাষীদের সমস্যা হয়- এমন সিদ্ধান্ত শেখ হাসিনা সরকার কখনো নেবে না।
গতকাল রবিবার বিকাল তিনটায় চকরিয়া সরকারি কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি চকরিয়া থানা রাস্তার মাথা এলাকায় সিস্টেম প্লাজা মার্কেটে বঙ্গবন্ধু কর্নার উদ্বোধন করেন।
মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, দুর্ণীতির দায়ে বেগম জিয়া দন্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারান্তরীণ ছিলেন। সেখান থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নের রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দয়ায় ও মানবিকতায় তিনি আজ প্যারোলে মুক্ত হয়ে বাসায় বসবাস করছেন। দুর্ণীতির দায়ে খালেদা জিয়া দন্ডপ্রাপ্ত এবং তার আরও এক ছেলে বিদেশে পলাতক রয়েছেন। এই হলো বিএনপি’র ইতিহাস। খালেদা জিয়াও দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিল, বর্তমানে শেখ হাসিনাও দেশের প্রধানমন্ত্রী। একজন প্রধানমন্ত্রী দুর্ণীতির দায়ে দন্ডপ্রাপ্ত, আরেকজন প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষের উন্নয়নে জন্য কাজ করছেন, দেশকে এগিয়ে নেয়ার কাজ করছেন। আজ বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে বাংলাদেশ।
হানিফ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদের উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছেন। বিশেষ করে বিধবা ভাতা, স্বামী পরিত্যক্ত ভাতা, দুস্থ ভাতা ও বয়স্ক ভাতা দিয়ে যাচ্ছেন। যা অন্য কেউ দেয়নি। দেশে আজ দলের প্রধান নারী, প্রধানমন্ত্রী নারী এবং স্পিকার নারী। এটাই প্রমাণিত শেখ হাসিনা নারীদের নিয়ে কাজ করছেন। শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে।
তিনি বলেন, প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর কক্সবাজারকে জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন। সেজন্য আজ এখানে হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন হচ্ছে। মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ, গভীর সমুদ্রবন্দর, এলএমএনজি টার্মিনাল হচ্ছে। কক্সবাজারের উন্নয়নের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছেন।
তিনি আরও বলেন, এই অঞ্চলের লবণ চাষীরা যাতে লবণের ন্যায্য মূল্য পায় সেজন্য বিদেশ থেকে লবণ আমদানি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করার জন্য আমি বাণিজ্যমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ জানাবো। লবণ চাষীদের সমস্যা হয় এমন সিদ্ধান্ত শেখ হাসিনা সরকার কখনো নেবেন না।
বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, বিএনপি নানাভাবে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। উন্নয়নে বাঁধা দিচ্ছে। তারা চক্রান্তের মাধ্যমে বিদেশি এজেন্সি এবং মিডিয়ার মাধ্যমে ক্ষমতায় আসতে চায়। বিএনপির সেই মনোবাসনা কোনোদিন পূরণ হবে না। কারণ শেখ হাসিনার সরকার হলো জনগণের নির্বাচিত সরকার। স্বাধীনতার ঘোষক নিয়েও বিএনপি যে ইতিহাস বিকৃতির চর্চা করে আসছে, তা পূণরায় করার কোনো সুযোগ নেই। কারণ বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। আর বাংলাদেশের ইতিহাসের রন্দ্রে রন্দ্রে এখন বঙ্গবন্ধুর অবস্থান।
হানিফ বলেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ৭ মার্চের ভাষণকে ঐতিহাসিক ভাষণ বলেছেন। উনি বললেও কিছু আসে যায় না। ৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর এদেশে ৭ মার্চের ভাষণ চালাতে দেয়া হয়নি। অথচ এই ভাষণ বিশ্বে স্বীকৃতি পেয়েছে। কয়েকটি ভাষণের মধ্যে ৭ মার্চের ভাষণ অন্যতম।
কক্সবাজার-১ আসনের (চকরিয়া-পেকুয়া) সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলমের সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জনসভায় আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. সিরাজুল মোস্তফা, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাড. ফরিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার সদর আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপি, সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার রোটন, জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য লায়ন কমরুউদ্দিন আহমদ, চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, মাতামুহুরীা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বাবলা, সাধারণ সম্পাদক মহসিন বাবুল, চকরিয়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু ও সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরী।