লংগদুতে প্রথমবার সূর্যমুখী ফুলের চাষে সফলতা

4

রাঙামাটির লংগদুতে প্রথমবারের মত পাহাড়ি জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করে সফলতা পেয়েছেন নবমিত্র কার্বারি। উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পরীক্ষামূলকভাবে এই প্রথমবার লংগদু উপজেলার বামে আটারকছড়া নবমিত্র কার্বারি চাকমার ৩০ শতক জমিতে প্রদর্শণীর মাধ্যমে এই সূর্যমুখী আবাদ করে তোলা হয় এখন্ড সূর্যমূখী বাগান। জমি ও বাগান মালিক নবমিত্র কারবাড়ি জানান, এই সূর্যমুখী ফুল বাগানকে ঘিরে দিন দিন বেড়েই চলছে দর্শনার্থীর সংখ্যা। প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা পর্যন্ত নানা বয়সী লোকজন আসছে সূর্যমুখী ফুলের বাগান দেখার জন্য। বাগান দেখতে এসে কেউ সেলফপি তুলছেন আবার কেউ ফুলের চাষ নিয়ে গভেষনা করছেন। সূর্যমুখী ফুলের কারণে পরিত্যাক্ত এই একখন্ড জমি এখন হয়ে উঠেছে ছোট খাট পর্যঠন স্পট।
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, পরীক্ষামূলকভাবে এবার ৩০শতক পাহাড়ী জমিতে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করা হয়েছে। ফলন খুবই ভালো হয়েছে। আগামীতে একে আরো বৃহৎ আকারে সূর্যমুখী চাষ করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি আমরা। সঠিক পৃষ্ঠপোষকতা পেলে উপজেলার পাহাড়ী উর্বর জমিগুলো হয়ে উঠতে পারে সূর্যমুখী ফুলের রাজ্য। বাণিজ্যিকভাবে সূর্যমুখী চাষ করা হলে শতভাগ সফলতার সম্ভাবনা রয়েছে। ব্যাপক ঔষধি গুণেসমৃদ্ধ সূর্যমুখী ফুল। সঠিভাবে বাজারজাত করা গেলে যার প্রতি কেজি বাজার মূল্য রয়েছে ৩শত থেকে সাড়ে ৩শত টাকা বলে মনে করেন স্থানীয়রা।