র‌্যাম্পের নিচে গাড়ি থামলে ভয়ে যাত্রীরা নেমে যাচ্ছেন

25

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহদ্দারহাট এমএ মান্নান ফ্লাইওভারের কালুরঘাটমুখি র‌্যাম্পের পিলারে ফাটলের সৃষ্টি হওয়ায় যান চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। এতে ফ্লাইওভারের নিচে সারাদিন যানজট লেগেই ছিল। এ ছাড়া জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় র‌্যাম্পের নিচে গাড়ি যানজটে পড়লে যাত্রীরা নেমে নিরাপদে দূরত্বে চলে যাচ্ছেন। আশপাশের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী দুর্ঘটনার ভয়ে আতঙ্কে দিনপার করেছেন। গতকাল সরেজমিনে গিয়ে এমন চিত্রের দেখা গেছে।
এদিকে ফ্লাইওভারের র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল সৃষ্টির কারণ অনুসন্ধান ও মেরামত করার জন্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (সিডিএ) চিঠি দিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। গতকাল চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শহিদুল আলম স্বাক্ষরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, বহদ্দারহাট ফ্লাইওভারের হক মার্কেট সংলগ্ন দুইটি পিলারে ফাটল সৃষ্টির কারণে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কও রয়েছে বলে উল্লেখ করে সংস্থাটি। তাই ফাটল সৃষ্টির কারণ তদন্তপূর্বক বের করে মেরামত করার নির্দেশনা দিয়েছে করপোরেশন।
উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৩০ নভেম্বর নগরীর বহদ্দারহাটের এমএ মান্নান ফ্লাইওভার, মুরাদপুর থেকে লালখানবাজার পর্যন্ত আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার, কদমতলী ও দেওয়ানহাট ওভারপাস রক্ষণাবেক্ষণের জন্য চসিককে হস্তান্তর করে সিডিএ। হস্তান্তরের ১৮ মাস পার হলেও বড় ধরনের মেরামতের প্রয়োজন হয়নি। যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে গর্ত ভরাট, বৈদ্যুতিক লাইট সচল করার কাজটি নিয়মিত করা হয়েছে জানিয়েছে সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী পূর্বদেশকে জানান, সিটি করপোরেশন ব্যবস্থাপনার জন্য যা দরকার তা নিয়মিত করছে। তবে নির্মাণ ত্রæটি বা নকশা জটিলতার কারণে পিলারে সমস্যা হলে সেটি বাস্তবায়নকারী সংস্থা দেখবে। তাই সিডিএকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। জনদুর্ভোগ লাঘবে বিষয়টি তাড়াতাড়ি সমাধানের তাগিদও দেওয়া হয়েছে বলে জানান মেয়র।
গত সোমবার রাতে ফাটল দৃশ্যমান হওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এসরারুল হক এসরাল। তিনি গতকাল পূর্বদেশকে জানান, জানাজানি হওয়ার পর প্রথমদিকে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। তাই মানুষের আতঙ্ক দূর করতে আমি নিজে উপস্থিত ছিলাম। নিচের ভ্যানগাড়ি ও দোকানপাট সরিয়ে নিয়েছি। এখন আতঙ্কের বিষয়টি স্বাভাবিক হয়েছে। সকাল থেকে যানজট হওয়ায় মানুষের দুর্ভোগ হয়েছে। তবে বিকাল থেকে যানজট কমে এসেছে।
তিনি আরও জানান, বহদ্দারহাট ফ্লাইওভারের ষোলশহর অংশ থেকে এক কিলোমিটার অংশ পর্যন্ত সরাসরি চলে যাওয়া যাচ্ছে। শুধু কালুরঘাটমুখি র‌্যাম্পটি বন্ধ রয়েছে। যারা জানেন না তারা দুর্ভোগে পড়ছেন। তাই ফ্লাইওভারের প্রবেশমুখে এমন নির্দেশনা সম্বলিত সাইনবোর্ড টাঙাবেন বলে জানান কাউন্সিলর এসরাল।