রেলমন্ত্রীর পদত্যাগ ও টিটিইকে পুনর্বহালের দাবি

29

পূর্বদেশ অনলাইন
মন্ত্রণালয় ও দপ্তরগুলোতে মন্ত্রীর স্ত্রীদের বেপরোয়া হস্তক্ষেপ ও বেআইনি নির্দেশনা, তদবির বাণিজ্য বন্ধ, টিকিটবিহীন যাত্রী হিসেবে রেল ভ্রমণরত মন্ত্রীর আত্মীয়কে জরিমানাকারী টিটিই শফিকুল ইসলামের বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। এছাড়া মন্ত্রণালয়ের কাজে স্ত্রীর অনৈতিক নির্দেশনা দেওয়ার দায়ে রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের পদত্যাগের দাবিও জানানো হয়েছে। রোববার (০৮ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী এই দাবি জানান। তিনি বলেন, ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতির ঘোষণা দিয়ে ক্ষমতাসীন সরকারের প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে যেখানে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করছেন সেখানে কিছু মন্ত্রীর স্ত্রীদের অবৈধ আদেশ-নির্দেশ পালনের ফলে বিভিন্ন দপ্তরের কাজে অনিয়ম-দুর্নীতি এখন আকাশচুম্বী।
দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা কর্মচারীরা মন্ত্রীর স্ত্রীদের পৃষ্ঠপোষকতায় ৮/১০ বছর ধরে স্বপদে থেকে টাকার কুমিরে পরিণত হচ্ছে। এতে করে অনেক দপ্তর এখন আমলাদের হাতে জিম্মি। ফলে যোগাযোগ সেক্টরে সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর ব্যয় বেড়ে যাচ্ছে। জনগণের টাকা লুটপাট চলছে।’ তিনি রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মতো একটি কচ্ছপ গতির মন্ত্রণালয়ে যেখানে একটি জনবান্ধব সিদ্ধান্ত নিতে বছরের পর বছর ফাইল আটকা থাকে সেখানে অফিস খোলার সঙ্গে অর্থাৎ সকাল ১০টায় একজন দায়িত্বরত টিটিইকে কিভাবে বরখাস্ত করা হলো, দরখাস্ত কোন সময় গ্রহণ করা হলো, কখন যাচাই-বাছাই করা হলো, কে এই অভিযোগ রিসিভ করলো এবং কে বরখাস্তের আদেশ অনুমোদন করলো তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।