রাশিয়া ‘কয়েক লাখ টন শস্য চুরি করেছে’, অভিযোগ ইউক্রেনের

6

 

ইউক্রেনের দখলকৃত এলাকাগুলো থেকে রাশিয়ার বাহিনীগুলো ‘কয়েক লাখ টন শস্য চুরি করেছে’ বলে অভিযোগ করেছেন ইউক্রেনের উপ-কৃষিমন্ত্রী। শনিবার ইউক্রেইনের রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনে কথা বলার সময় উপ-কৃষিমন্ত্রী তারাস উইসোজস্কি এ অভিযোগ করেন বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
এসব শস্যের অধিকাংশই রাশিয়ার দখলকৃত অঞ্চলে মজুদ করে রাখা ১৫ লাখ টন শস্য থেকে নেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। রাশিয়ার বাহিনীগুলো বাকি শস্যও চুরি করে নিতে পারে, এমন আশঙ্কাও জানান উইসোজস্কি। দখলকৃত এলাকায় শস্য চুরির জন্য বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রাশিয়াকে অভিযুক্ত করে। রাশিয়ার এ ধরনের কর্মকাÐের কারণে বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তার প্রতি হুমকি বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে মন্ত্রণালয়টি অভিযোগ করে।
রাশিয়ার বাহিনীগুলো ইউক্রেনের রাজধানী কিইভ দখলে ব্যর্থ হওয়ার পর এখন দেশটির পূর্ব ও দক্ষিণাঞ্চলের দিকে মনোযোগ দিয়েছে। নয় সপ্তাহ ধরে চলা যুদ্ধে ইউক্রেনের বহু শহর ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে, কয়েক হাজার লোক নিহত ও ৫০ লাখেরও বেশি মানুষ দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছে। ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খেরসন পুরোপুরি ও পূর্বাঞ্চলীয় বন্দরনগরী মারিউপোলের অধিকাংশই দখল করে নিয়েছে মস্কোর বাহিনীগুলো।
তবে তারা মারিউপোলের বিশাল একটি ইস্পাত শিল্প কারখানার নিয়ন্ত্রণ এখনও নিতে পারেনি, সেখানে ইউক্রেনের কয়েক হাজার সামরিক, বেসামরিক ও আহত সেনা আটকা পড়ে আছে।
বিবিসি জানিয়েছে, ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের দনবাসে দুপক্ষের মধ্যে লড়াই অব্যাহত আছে। রাশিয়া দনবাসের লুহানস্ক অঞ্চলের রুবিয়েজনা ও পোপাসনার দখল সম্পূর্ণ করার চেষ্টায় আছে। উত্তরপূর্বাঞ্চলের খারকিভ অঞ্চলের একটি প্রধান যুদ্ধক্ষেত্র ইঝুম শহরের চারদিকে রাশিয়া নতুনভাবে সেনা মোতায়েন করছে বলে উইক্রেইনের সেনাবাহিনী জানিয়েছে।
শুক্রবার দিবাগত রাতে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর বেশ কয়েকটি স্থাপনায় তারা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে বলে রাশিয়া জানিয়েছে। এসব স্থাপনার মধ্যে অস্ত্র ও জ্বালানি ডিপোও রয়েছে বলে দাবি করেছে তারা। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ইউক্রেনে তাদের ‘বিশেষ সামরিক অভিযান পুরোপুরি পরিকল্পনা অনুযায়ী এগিয়ে যাচ্ছে’।