রাশিয়ার ভেতরে হামলা ইউক্রেনের ‘কৌশলগত মুন্সিয়ানা’

9

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ নিয়ে সম্প্রতি ইঙ্গিত দিতে শুরু করেছেন ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা। সোমবার সকালে রাশিয়ার দুটি বিমানঘাঁটিতে রহস্যময় বিস্ফোরণ ঘটেছে। এই বিস্ফোরণের পর একটি নতুন ও অপ্রত্যাশিত অস্ত্র হাজির হয়েছে। হয়ত দূরপাল্লার রকেট কিংবা পরিবর্তিত একটি ড্রোন। যুদ্ধের রণক্ষেত্রে বহুদূরে এই দুটি বিস্ফোরণ ঘটেছে। রুশ সোশাল মিডিয়ায় প্রকাশিত ভিডিওতে সারাতভ অঞ্চলে রাশিয়ার বিমানঘাঁটি অ্যাঙ্গেলস-২ তে বিস্ফোরণ দেখা গেছে। অপর বিস্ফোরণ ঘটেছে রুশ প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ক্রেমলিন ও রাজধানী মস্কো থেকে মাত্র ১৫০ মাইল দূরে রিয়াজান অঞ্চলের কাছে দিয়াজিলেভো সামরিক বিমানঘাঁটিতে।রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুসারে, দুটি ঘাঁটিতে অন্তত তিনজন নিহত ও অপর পাঁচজন আহত হয়েছে। জ্বালানিভর্তি একটি ট্রাকে বিস্ফোরণের পর আগুন ধরে যায়। অন্তত দুটি উড়োজাহাজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিস্ফোরণের প্রকৃত কারণ এখনও স্পষ্ট। কিন্তু দৃশ্যত মনে হচ্ছে ইউক্রেন রাশিয়ার দূরপাল্লার যুদ্ধবিমান টিইউ-৯৫ ও টিইউ-২২এমকে আঘাতের একটি উপায় বের করে ফেলছে। দুটি বিমানঘাঁটিতে এসব যুদ্ধবিমান রাখা ছিল।
অক্টোবর থেকে ক্রেমলিন এই দুই ধরনের কৌশলগত বোমারু দিয়ে ইউক্রেনের জ্বালানি অবকাঠামোকে তছনছ করে দিয়েছে একের পর এক হামলায়। এর ফলে শীতে লাখো ইউক্রেনীয় বিদ্যুৎ ও হিটিং ব্যবস্থা ছাড়াই দিনযাপান করছেন।