রাজাকাররা যেন প্রতিষ্ঠিত হতে না পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে

7

পটিয়া প্রতিনিধি

যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম বলেছেন, তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা মারা গেলে তাদের জন্য পুলিশের পা তুলে রাষ্ট্রীয় স্যালুট সম্মানের হয়। কিন্তু এ স্যালুট তালিকাভুক্ত ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য পুলিশের রাষ্ট্রীয় লাথি হিসেবে গণ্য হয়। স্বাধীনতার বিরোধীতা করেছিল এমন অনেক রাজাকার নানা কৌশলে মুক্তিযোদ্ধার সনদ নিয়েছেন। তাদের কারণে স্বাধীনতা অর্থবহ হবে না। রাজাকাররা যাতে প্রতিষ্ঠিত হতে না পারে সে দিকে সকলকে লক্ষ্য রাখতে হবে। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ না করেও অনেকে এখন ভাতা গ্রহণ করছেন এবং মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম প্রকাশ হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে যারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে দেশ স্বাধীন করেছেন তাদের পরিবারের খোঁজখবর নেওয়া সকলের দায়িত্ব। অথচ প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা বিভিন্নভাবে অবহেলিত।
গতকাল সোমবার বিকেলে পটিয়া অটো টেম্পো শ্রমিক কল্যাণ সমবায় সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত মহান বিজয় দিবসের আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সংগঠনের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াছের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ খোরশেদ আলমের পরিচালনায় এতে প্রধান বক্তা ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ডিএম জমির উদ্দিন, বিশেষ অতিথি ছিলেন যুবলীগ নেতা শাহীনুল ইসলাম, মোহাম্মদ হাসান, সাইফুদ্দীন ভোলা, লিটন বড়ুয়া, শ্রমিক নেতা কামাল উদ্দিন, আহমদ ছগীর, আবদুর রহিম, বেলাল উদ্দিন, সাকিল, লেদু মিয়া, রুবেল, কপিল, নয়ন, ছোটন প্রমুখ।