রাজস্থলীতে হেডম্যানকে অপহরণের পর হত্যা

6

রাঙামাটির রাজস্থলীতে অপহরণের পর হেডম্যানকে (মৌজা প্রধান) গুলি করে ও ধারালো অস্ত্রে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে স্বরষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের রাঙামাটি সফরের সপ্তাহের ব্যবধানে এ হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটে। নিহত দ্বীপময় তালুকদার (৪০) রাজস্থলী উপজেলার ৩৩৩ নম্বর ঘিলাছড়ি মৌজার হেডম্যান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় বিএনপি নেতা ছিলেন তিনি। গত মঙ্গলবার রাতে রাজস্থলী উপজেলা সদরের জিরোমাইল নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনার পর এলাকার পরিস্থিতি থমথমে হয়ে উঠেছে। জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে খুনি সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে সকালে রাজস্থলী বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে এলাকাবাসী। অপরদিকে হেডম্যান দ্বীপময় তালুকদারকে গুলি করে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদে তীব্র নিন্দা ও সুষ্ঠু বিচারের মাধ্যমে দুর্বৃত্তদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাঙামাটি জেলা বিএনপি। বর্তমানে এলাকায় নিরাপত্তাবাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে রাজস্থলী উপজেলা সদরের তাইতং পাড়া থেকে হেডম্যান দ্বীপময় তালুকদারকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জিরোমাইল এলাকার পাশের জঙ্গলে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে নিরাপত্তাবাহিনীকে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে নিহতের পরিবারের সদস্য ও স্বজনরা ঘটনাস্থল গিয়ে দ্বীপময় তালুকদারের লাশটি শনাক্ত করে। পরে পুলিশসহ নিরাপত্তাবাহিনী সেখান থেকে লাশটি উদ্ধার করে।
রাজস্থলী থানার ওসি মফজল আহম্মেদ বলেন, হেডম্যান দ্বীপময় তালুকদারকে গুলি করে এবং ধারালো অস্ত্রে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। কোনো এক আঞ্চলিক দলের সন্ত্রাসীরা ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। জড়িতদের খুঁজতে তদন্ত শুরু হয়েছে। সন্দেহজনক সব জায়গায় তল্লাশি চালানো হচ্ছে। লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বর্তমানে এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।