রাজনীতিবিদ ইব্রাহিম বিন খলিলের স্মরণ সভা

77

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান দিদারুল কবির দিদার বলেছেন, জাপার সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চট্টগ্রাম নগর আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইব্রাহিম বিন খলিল ৯০ পরবর্তী পল্লীবন্ধু এরশাদ মুক্তি আন্দোলনে একজন সাহসী সিপাহসালার ছিলেন। শত নির্যাতন, নিপীড়ন, জেল-জুলুম, হামলা-মামলা উপেক্ষা করে ইব্রাহিম বিন খলিলদের সাহসী নেতৃত্বে এরশাদ মুক্তি আন্দোলন বীর চট্টগ্রামে তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে উঠেছিল। ইব্রাহিম বিন খলিলের অভাব জাতীয় পার্টিতে কোনোদিন পূরণ হবে না।
৪ ডিসেম্বর চেরাগী পাহাড় সুপ্রভাত স্টুডিও হলে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইব্রাহিম বিন খলিল স্মরণসভা উদ্যাপন পরিষদ আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে বক্তব্য রাখেন – চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম। মহানগর জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল্লাহ মিয়ার সভাপতিত্বে ও স্মরণসভা উদ্যাপন পরিষদের সদস্য সচিব নাছির উদ্দীন ছিদ্দিকীর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন- চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, সাতকানিয়া পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ জোবায়ের, নগর জাপার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, খোরশেদ আলম চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিজ সওদাগর, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, নগর যুব সংহতির সভাপতি এস.এম. সাইফুল্লাহ সাইফু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক নুরুল বশর সুজন, সহ-সভাপতি ছালেহ্ আহমদ ভূঁইয়া প্রমুখ। সভাশেষে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইব্রাহিম বিন খলিলের রুহের মাগফিরাত ও দেশ-জাতির কল্যাণ কামনা করে মুনাজাত পরিচালনা করা হয়। বিজ্ঞপ্তি