রাঙামাটিতে পার্বত্য কাব্যের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

6

খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি বলেছেন, কবি সাহিত্যিকরা হলেন শৈল্পিক মনের অধিকারী। তাদের জগৎটাই আলাদা। সাহিত্য আছে বলে পৃথিবী এতো সুন্দর। কবিদের লেখনী পড়ে মানুষ তার সুপ্ত চিন্তার বিকাশ ঘটায়। মানুষের ভাবনার পরিধি বিশাল রূপ পায়। কবি সাহিত্যিকদের জগতে আসতে পারাটাও অনেক ভালো লাগার। আমি নিজে এসে তৃপ্ত হয়েছি। গত ২০ জানুয়ারি সামাজিক সাহিত্য সংগঠন পার্বত্য কাব্যের পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী, সাহিত্য সাংস্কৃতিক উৎসব ও গুণীজন সমাবেশের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। পার্বত্য কাব্যের সভাপতি কাছেন রাখাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রথম অধিবেশনে উদ্বোধনী ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন পার্বত্য কাব্যের প্রধান উপদেষ্টা কবি হাসান মনজু। রাঙামাটি জেলা সদরের তবলছড়ি শাহ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে আয়োজিত এ সাহিত্য উৎসবে প্রথম অধিবেশনে বরেণ্য কথাশিল্পী অধ্যাপক হরিশংকর জলদাশ প্রধান আলোচকের বক্তব্য রাখেন। সাহিত্য সংস্কৃতি নিয়ে আয়োজিত দুই অধিবেশনের দ্বিতীয় পর্বে প্রধান আলোচক হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন সাহিত্যে বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক শিশুসাহিত্যিক গীতিকার কবি আসলাম সানী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রাক্তন সংসদ সদস্য ও পার্বত্য কাব্যেও উপদেষ্টা ফিরোজা বেগম চিনু, পশ্চিমবঙ্গ ভারত থেকে আগত কবি প্রবীর কুমার চৌধুরী প্রমুখ। এ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন পশ্চিমবঙ্গ থেকে আগত পাবর্ত্য কাব্য অনলাইনের পরিচালক কবি চন্দ্রাবলী মুখোপাধ্যায়। দুই অধিবেশনের পর্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বেতারের আঞ্চলিক পরিচালক মো. সেলিম, চলচ্চিত্র অভিনেতা ও সংগঠক কবি এবিএম সোহেল রশিদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে অন্যদের সাথে গীতিকার, কবি ও শিশুসাহিত্যিক ফারুক হাসান ও কবি-শিশুসাহিত্যিক সাঈদুল আরেফীন, কবি অরূপ কুমার বড়–য়া, কবি সেলিম তালুকদার আকাশসহ দেশ বিদেশের গুণী সাহিত্যিকরার সম্মাননাপ্রাপ্ত হয়েছেন। বিজ্ঞপ্তি