যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি খোরশেদের আত্মসমর্পণ

15

নিজস্ব প্রতিবেদক

পাঁচলাইশ থানার হামজারবাগ এলাকায় মো. নূরুল আলম রাজু হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত খোরশেদ নামে এক আসামি আত্মসমর্পণ করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক একেএম মোজাম্মেল হকের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করেন। এর আগে গত ১২ জানুয়ারি একই মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আইয়ুব নামে আরেক আসামি আত্মসমর্পণ করেছিলেন।
গত ২৮ ডিসেম্বর দুপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক একেএম মোজাম্মেল হকের আদালত পাঁচলাইশ থানার হামজারবাগ এলাকায় মো. নূরুল আলম রাজু হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন কারাদÐ ও ১০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছিলেন। ১৪ আসামি খালাস পেয়েছিলেন। ২ আসামি শিশু হওয়ায় অন্য আদালতে মামলা চলমান রয়েছে।
আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৩ নভেম্বর পাঁচলাইশ থানাধীন বিবিরহাটে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রাজুকে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মো. কুতুবুল আলম বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় ৬ জনকে আসামি, ৩-৪ জনকে অজ্ঞাত পরিচয়ের আসামি করে মামলা করেন। তদন্ত শেষে ২২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।
তৎকালীন পাঁচলাইশ থানার ওসি মহিউদ্দিন মাহমুদ জানিয়েছেন, রাজু এলাকার চিহ্নিত মাদক বিক্রেতা। মাদক বিক্রির টাকা ভাগাভাগি নিয়ে দ্বন্দ্বে রাজু একই গ্রুপের বিক্রেতাদের হাতে খুন হয়েছেন। তবে রাজু’র পরিবারের সদস্যরা সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেছেন, রাজু ছাত্রলীগ কর্মী ছিল। চাঁদাবাজরা তাকে খুন করেছে।
আসামি পক্ষের আইনজীবী আহমদ কামরুল ইসলাম সাজ্জাত বলেন, বৃহস্পতিবার রাজু হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত খোরশেদ ও গত বুধবার আইয়ুব আত্মসমর্পণ করেছিলেন। আদালত তাদের কারাগারে পাঠিয়েছেন। রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে।