যমুনা ব্যাংকের ৫ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

124

সরকারি খাস জমি বন্ধক রেখে অর্থ আত্মসাতের দায়ে যুমনা ব্যাংকের সাবেক ও বর্তমান ৫ কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ডবলমুরিং থানার আগ্রাবাদ বাদামতলী মোড় থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। সরকারি খাস জমি বন্ধক রেখে ১১ কোটি ৩৬ লাখ আত্মসাতের অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন মিরসরাই উপজেলা হিংগুলি গ্রামের মৃত বশির আহমদের ছেলে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেড ও যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ভাটিয়ারী শাখার সাবেক সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার সাহাব উদ্দিন, ফটিকছড়ি থানার ধর্মপুর গ্রামের মৃত ফনী ভূষণ বড়ুয়ার ছেলে যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ভাটিয়ারী শাখার সাবেক সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার সুব্রত বড়ুয়া, কক্সবাজার জেলার চকরিয়া থানার হারবাং গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ভাটিয়ারী শাখার সাবেক এভিপি সাব-ম্যানেজার ও বর্তমানে ইউনিয়ন ব্যাংকের আগ্রাবাদ শাখার এভিপি মো. গোলাম সরোয়ারুল হক, হাটহাজারী উপজেলার উত্তর মাদর্শা গ্রামের মোহাম্মদ জানে আলম চৌধুরীর ছেলে যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ভাটিয়ারী শাখার সাবেক সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার ও বর্তমান এসবিএসি ব্যাংক লিমিটেডের ভাটিয়ারী শাখার এফভিপি ও ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সদর থানার ছোট হরণ গ্রামের মোহাম্মদ শাহাজানের ছেলে যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ভাটিয়ারী শাখার সাবেক এক্সিকিউটিভ অফিসার ও বর্তমানে আগ্রাবাদ শাখার এফভিপি অফিসার মোহাম্মদ রায়হান।
দুদকের উপসহকারী পরিচালক হোসাইন শরীফ বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যা সোয়া ৫ টার দিকে যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক ও বর্তমানে কর্মরত ৫ কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আসামিরা পরস্পর যোগসাজশের মাধ্যমে সরকারি খতিয়ানভুক্ত ৫৪ দশমিক ৬৯ শতক জমি ভুয়া রেকর্ডপত্র তৈরি করে বেসরকারি প্রাইভেট ব্যাংকে বন্ধক রেখে ১১ কোটি ৩৬ লাখ ৩৫ হাজার ১৭৮ টাকা অর্থ আত্মসাৎ করেন। গ্রেপ্তারের পর তাদেরকে ডবলমুরিং থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।