মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সোনারবাংলা বিনির্মাণ করতে হবে

26

চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের ৪৮তম মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বিজয়ের গান, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ, সম্মাননা প্রদান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান গত ২৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি বাবুল কান্তি দাশ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। এতে প্রধান আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ব সৈয়দ মাহমুদুল হক। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্লোগান সম্পাদক মো: জহির, সাতকানিয়া পৌর মেয়র মো: জোবায়ের, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি লায়ন মো: জাফর উল্লাহ, কলামিষ্ট লায়ন এ.কে জাহেদ চৌধুরী, নাট্যজন সজল চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা এম.এ সালাম, দক্ষিণ জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ নুরুল আবছার, সাংবাদিক সুজিত কুমার দাশ, সংগীত শিল্পী রুপম মুৎসুদ্দী টিটু, নুরুল হুদা চৌধুরী, কবি সজল দাশ, দাশ, শাহীন ফেরদৌসি, রতন দাশগুপ্ত, মুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন, সংগঠক মো: লিপটন, সুমন চৌধুরী, সাইফুল আরাফাত বাপ্পা, রেশমা আক্তার। সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী আবু হানিফ চৌধরী, লুপর্ণা মুৎসুদ্দী, মোজাহেরুল ইসলাম, রুবেল চৌধুরী, প্রাচী মুৎসুদ্দী, অনন্য বড়ুয়া, ঐশি মজুমদার, বৃষ্টি বড়ুয়া, অনিন্দিতা বড়ুয়া, রীমা দত্ত, পদ্মমিতা বড়ুয়া, ত্রিপর্ণা দাশ, কমল দাশ, আবৃত্তি করেন শবনম ফেরদৌসি, পিয়ম কৃষ্ণ দে। তবলায় সহযোগিতা করেন জোবায়ের, কীবোর্ডে ছিলেন তাজউদ্দিন। সভার শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদ ও সম্প্রতি প্রয়াত ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদনের আত্মার মাগফেরা কামনা করে নিরবতা পালন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মহান বিজয় দিবস বাঙালির চির গৌরব ও অহংকারের দিন। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সেদিন আমরা একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র পেয়েছি। তিনি আরও বলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে দেশপ্রেম হৃদয়ে ধারণ করে এগিয়ে যাব জনকের সোনার বাংলা বিনির্মাণে। বিজয়ের ৪৮তম বর্ষে আজ খুব বেশী প্রয়োজন দেশপ্রেম। ত্যাগ আর সেবায় নিজেদের উৎসর্গীকৃত করার প্রত্যয়। সভায় বক্তারা আরও বলেন, বিশ্বনেত্রী, বিশ্ব মানবতার মূর্ত প্রতীক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার যে নিরলস কর্মপ্রচেষ্টা, সেবা আর ত্যাগে যিনি মহীয়ান, যার আহব্বান সত্য সুন্দর পথে চলে তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়ার আজকের বিজয় দিবসে সে আহব্বানে প্রাণিত হয়ে দেশমাতার সেবায় নিজেকে সম্পৃক্ত করবে এই প্রত্যাশা। বিশ্বে বাঙালী এমন একটি জাতি যাদের রয়েছে অহংকার আর গর্ব করার মত একটি দিবস-বিজয় দিবস। গর্ব হয় আমরা সেই দিবস উদযাপনকারী হিসেবে।দীর্ঘ নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধ ত্রিশ লাখ বাঙালীর আত্মত্যাগ চার লাখের অধিক মা বোনের ত্যাগ অতপর ১৬ ডিসেম্বর এই বিজয়। অদম্য এই বাঙালি মানে না পরাজয়। নিরস্ত্র বাঙালী অসীম সাহস বুকে ধারণ করে দেশপ্রেমে উজ্জীবিত হয়ে মাতৃভূমিকে পরাধীনতার শৃঙ্খল মুক্তি ঘটান লক্ষ্যে।