‘মানবতা মরি গেইয়ে বউত আগে’

58

‘মানবতা মরি গেইয়ে বউত আগে, পরান আছে ইয়ান বউত বেশি। হডে যাইয়ুম, কি খাইয়ুম কিছু ন’জানি। হনো কেউও এক বোতল পানিও লই ন’আইয়ে।’ গতকাল সোমবার সকালে পতেঙ্গার লালদিয়ার চরে এভাবেই আবাসহারা কান্নামাখা ক্ষোভ ঝাড়ছিলেন সত্তরোর্ধ্ব কাশেম মিয়া। পরিবার পরিজন নিয়ে উচ্ছেদ হওয়া কাশেম মিয়ার সামনে এখন কেবল ঝাপসা ভবিষ্যৎ। আদালতের নির্দেশে লালদিয়ার চরে অবৈধ দখল উচ্ছেদ প্রক্রিয়া চলার সময় কাশেম মিয়ার মতো আরো অনেকেই এ ধরনের ক্ষোভ ঝাড়ছিলেন। তবে কোনও বিপত্তি ছাড়াই বসবাসকারীরা নিজেরাই নিজেদের ঘর-বাড়ি ভেঙে চলে যান দীর্ঘদিনের মায়ার বন্ধন ছিন্ন করে। কাশেম মিয়া বিলাপ করে আরও বলেন, মানবতা এখন ভাসানচরে। যেখানে রোহিঙ্গাদের রাখা হয়েছে। আর লালদিয়ার চরে আমাদের জন্য কেউ নাই, কেউ কোনও খাদ্য বা পানি নিয়েও আসেনি। এটাই কি মানবতা? নিজ দেশের জন্য অতীতে নিজেদের ভিটা-মাটি ছেড়ে দিলেও আজ তার এমন চরম প্রতিদান পেলাম! বিচার আল্লাহ’র দরবারে দিলাম। আরজি শুধু একটাই, আমাদের কবরস্থানটি যেন থাকে, সময় সুযোগ পেলে স্বজন ও মুরব্বীদের কবর জেয়ারত করতে যেন আসতে পারি।