মানবতার ডাকে অসহায়দের পাশে দরদী হাজারো মানুষ

53

 

পাঁচলাইশ থানা যুবদল :
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে জাতীয়তাবাদী যুবদল। সাধারন ছুটি ঘোষণার কারনে আয়ের পথ বন্ধ হয়ে খাদ্য সংকটে থাকা এসব মানুষকে চাল, ডাল, আলু, তেল, সাবান সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহেদের সহযোগিতায় পাঁচলাইশ থানা যুবদলের উদ্দ্যোগে ২০০ পরিবারকে খদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন পাঁচলাইশ থানা যুবদলের আহবায়ক মোহাম্মদ আলী সাকী। গত ৬ এপ্রিল সোমবার সকালে নগরীর মোহাম্মদ পুর এলাকা থেকে এসব খাদ্যসামগ্রী ঘরে ঘরে পৌছে দেওয়া হয়। ইতিমধ্যে মহানগর ও পাঁচলাইশ থানা যুবদলের পক্ষ থেকে চট্টগ্রামের বিভিন্নস্থানে খাদ্যসামগ্রী, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ ও জীবাণুনাশক ঔষধ ছিটানো হয়। খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে মোহাম্মদ আলী সাকী বলেন, প্রাণঘাতী করোনার এই দুর্যোগ মুহুর্তে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোই আমাদের কর্তব্য। সমাজের যারা বিত্তবান আছেন তাদের সকলকে এসব অসহায় কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সিঃ যুগ্ম সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল পারভেজ, সেলিম উদ্দিন রাসেল, মোঃ রাজন খান, ওমর ফারুক, পাঁচলাইশ থানা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক মোঃ আইয়ুব খান, মোঃ রাসেল আকাশ, শাহিদুল ইসলাম মাসুম, মোঃ জাবেদ আলী, যুবদল নেতা মোহাম্মদ নাছির, আমজাদ হোসেন, মোহাম্মদ জাবেদ, সোলাইমান হোসেন মনা, সাইফুল ইসলাম,রাসেল আহমদ, রাশেদ আলম, শাহাদাত হোসেন, মোহাম্মদ সানি প্রমূখ।
আমান উল্লাহ আমান :
করোনায় বিপর্যস্ত জনজীবন। করোনার প্রভাবে কাজ হারিয়েছেন অনেকেই। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন ভাসমান মানুষ ও শ্রমজীবিরা। এসব দরিদ্র ও অসহায় মানুষের সহায়তায় এগিয়ে এসেছেন চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আমান উল্লাহ আমান। ১৩ নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডে সম্প্রতি ৪০০ অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন তিনি। খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন খুলশী থানা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক মো. মিল্টন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মাহবুবু খালেদ, যুবদল নেতা জামিল হোসেন, নুরুল কবির লিটন, সাদ্দাম হোসেন, বাবলু, লিটন, কালু ও ছাত্রদল নেতা মো. সাদ্দাম হোসেন সাইফ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি
মহিলা কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম :
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা এবং সরকার ঘোষিত সকল নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানিয়ে নিম্ন আয়ের মানুষগুলোর পরিবারে খাদ্য সংকট মোকাবেলায় রাতের আধাঁরে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য বিতরণ করছেন মহিলা কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম। দিনের বেলায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণে জন সমাগম ঠেকানো সম্ভব হয় না। তাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি মাথায় রেখে সন্ধার পরপরই কয়েকজন সফর সঙ্গীসহ গাড়ি নিয়ে বের হয়ে পড়েন খাদ্যসামগ্রী বিতরণের জন্য। নিম্ন আয়ের পরিবার, অসহায় ও দিনমজুর পরিবারগুলোকে খুঁজে বের করে তাদের মাঝে নিজস্ব তহবিল থেকে বিতরণ করছেন চাল ডাল আলু শাবান মাক্স ডালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী। গত রোববারও সন্ধ্যার পর চকবাজার দেওয়ানবাজার আন্দরকিল্লা এলাকায় ত্রাণসমাগ্রী বিতরণ শুরু করেন। মধ্যরাত পর্যন্ত দুইহাজার সহস্রাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। একই সঙ্গে করোনাভাইরাস সংক্রামণরোধে তিনি ঘর থেকে বের না হওয়ার জন্য আহব্বান জানান। তিনি বলেন, আপনাদের কারো কোনো কিছু প্রয়োজন হলে কোনো মাধ্যম হয়ে নয়, সরাসরি আমাকে ফোন দিবেন। প্রয়োজনীয় সকল কিছু আপনার বাড়িতে আমরাই পৌছে দেব ইনশাল্লাহ। কোনো কারণেই আপনারা ঘর থেকে বের হবেন না।
ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ইভান :
নগরীর চকবাজার এলাকার অসহায় নিন্ম আয়ের শ্রমজীবি মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে চকবাজার থানা ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ইভান। গত রোববার তার ব্যাক্তিগত তহবিল হতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ঘরবন্ধি শ্রমজিবী, অসহায় নিন্ম আয়ের মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে এই সব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। শতাধিক পরিবারের মাঝে চাল, ডালসহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য বিতরণ করা হয়। ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ইভান বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বব্যাপী মানুষ যখন ঘরবন্ধী, বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ছুটি ঘোষণার পর সারা দেশ যখন লকডাউনে পরিণত হয়েছে তখন এর প্রভাব পড়েছে নিন্ম আয়ের শ্রমজীবী মানুষের উপর। তাদের পরিবারে দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট।
এই সংকট থেকে উত্তরণের লক্ষে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু ভাইয়ের নির্দেশে শতাধিক পরিবারেরর মাঝে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিয়েছি। যার যার অবস্থান থেকে এ সব মানুষের পাশে দাড়ানো সকলের কর্তব্য। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রত্যেক নেতাকর্মী এ দূর্যোগে জনমানুষের পাশে থাকবে। এসময় ছাত্রলীগ নেতা জুবায়েদ আহম্মেদ বাবলু, বেলাল, রায়হান, নাঈমুল হাসান তুষার, সাইফুল ইসলাম, অন্তর কর, মো তোফা, সিহাব হাসান, নাদিম, মো রিয়াজ প্রমুখ।
বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা ফাউন্ডেশন :
বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা ফাউন্ডেশের উদ্যোগে গত ৬ এপ্রিল করোনাভাইরাসের সংক্রমনরোধে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে কর্মহীন হয়ে পড়া হত দরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য ও ত্রাণ সামগ্রী সংগঠনের মহা-সচিব লায়ন ডাঃ আর কে রুবেল’র নেতৃত্বে ও একুশে পদক প্রাপ্ত ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়ার সার্বিক তত্ত্ববধানে চাল, ডাল, আলু, তেল, লবন, ডেটল সাবান বিতরণ করা হয়। সংক্ষিপ্ত বক্ত্যবে লায়ন ডা. আর কে রুবেল বলেন, আপনার যাতে অভুক্ত না থাকেন সে চেষ্টার অংশ হিসাবে সরকারের পাশাপাশি বঙ্গববন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা ফাউন্ডেশনের নেতৃবৃন্দরা পাশে দাড়িয়েছে। তিনি আরো বলেন, করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবে সরকার যে নীতিমালা গ্রহণ করেছেন তা মেনে চলার সকলের প্রতি আহব্বান জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন ডা. মনির আজাদ, ডা: উজ্জ্বল দাশ, সুভাষ লোধ, মিলন কান্তি দেবনাথ, ডা: অপূর্ব ধর, এস.কে পাল সুজন, প্রনব মজুমদার, ডা: মজিবুল হক চৌধুরী, বেলাল হোসেন উদয়ন, শিল্পী সমীরন পাল।
চট্টগ্রাম বাবুর্চি সমিতি :
নগরী আসকার দিঘীর পাড় চট্টগ্রাম বাবুর্চি সমিতির উদ্যোগে করোনাভাইরাসের এই বৈশ্বিক দুর্যোগে বাংলাদেশও আক্রান্ত। এই রোগের বিরুদ্ধে চলছে আমাদের পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা এবং সচেতনতার যুদ্ধ। দেশব্যাপী চলছে এক ধরনের লকডাউন। ফলে দুর্বিপাকে পড়েছেন বিত্তহীন, অসহায়, দিনমজুর, রিক্সাচালক ও অস্বচ্ছল মানুষেরা। দেশের প্রান্তিক মানুষেরা করোনা সম্পর্কিত সতর্কতামূলক ব্যবস্থাগুলো সম্পর্কেও ততটা সচেতন নয়।
নগরীর আসকার দিঘীরপাড় দিনমজুর, রাজমিস্ত্রী রিকশাওয়ালা, ভ্যানচালক, ছুটা বুয়াসহ কর্মহীন অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে অসহায় দুইশ পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। গত রবিবার সকাল ১০টায় এই ত্রাণ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বাবুর্চি সমিতির সভাপতি আহম্মদ উল্লাহ বাবুর্চি ও সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন বাবুর্চি চট্টগ্রাম বাবুর্চি সমিতির সদস্যরা সহযোগিতা করেন।
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা এম.এ নেওয়াজ :
বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ আকারে আঘাত করেছে ভয়ংকর করোনা ভাইরাস। এই ভাইরাসের আঘাতে অনেক উন্নত দেশ ইতোমধ্যে কাবু হয়ে গেছে।
বাংলাদেশে করোনার প্রভাবে কার্যতঃ পুরো দেশ লকডাউন রয়েছে। এতে শ্রমজীবি মানুষগুলো চরম অর্থকষ্টের সম্মুখীন হওয়ায় বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছা-সেবকলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সম্মানিত সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সংগ্রামী সাধারন সম্পাদক সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দিনেরর নির্দেশনায় গত ৫ এপ্রিল ২৫নং রামপুর ওয়ার্ড, ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ও কদমতলী এলাকা সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে দিনমজুর, রিকশা চালক, ভ্যানগাড়ী, চালক হতদরিদ্র ৩০০ পরিবারের মাঝে নিজস্ব উদ্যোগে ত্রান সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল ডিস্ট্রিক ৩১৫-বি৪ বাংলাদেশ এর ডিস্ট্রিক সেক্রেটারি ও নগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা লায়ন এম.এ নেওয়াজ। এম.এ নেওয়াজ সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের কেউ এই দূর্যোগের সময় খাদ্যসামগ্রী নিয়ে নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিশেষ অনুরোধ জানান। আমিও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে অসহায় মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছি মাত্র। তিনি এভাবে বিভিন্ন ওয়ার্ডে আরো ত্রান-সাহায্য পৌঁছানোর কার্যক্রম অব্যহত থাকবে বলে জানান।
বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফাউন্ডেশন :
জাতীয় দূর্যোগ করোনা ভাইরাসের কারণে ঘরবন্দি মানুষের মাঝে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির উদ্যোগে ৩য় বারের মত গত ৬ এপ্রিল বিকাল ৫ টায় পতেঙ্গা এলাকার বিভিন্ন স্থানে অসহায় নিন্ম আয়ের শ্রমজীবি পরিবার ও কর্মহীন ইজিবাইক চালকদের মাঝে খাদ্য ও ত্রান সামগ্রী বিতরণ করা হয়। নগর কমিটির সহ-সভাপতি মো.নুরুল আবছার ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জয়নাল আবেদীনের নেতৃত্বে ত্রান বিতরণ সম্পন্ন হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাংবাদিক এস কে সাগর,বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফাউন্ডেশন পতেঙ্গা থানার আহব্বায়ক মো. মাসুদ খান,আজালা জলদাসসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ত্রান বিতরণ কালে মো.নুরুল আবছার বলেন,দিন দিন প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস কারণে বাড়ছে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ও মৃত্যুর হার। প্রাণঘাতী করোনা মোকাবেলায় আমাদেরকে আরও সচেতন হতে হবে। তিনি আরও বলেন, প্রশাসনের কাছে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির পক্ষ খেকে আহব্বান জানাচ্ছি পতেঙ্গা এলাকার বিভিন্ন অলি গলিতে সকাল সন্ধ্যা যারা অকারণে ঘোরা ফেরা করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য।
চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ :
বিশ্বব্যাপী মহামারী করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মসূচীর অংশ হিসেবে অসহায় হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম কলেজ। গত সোমবার বিকাল চার ঘটিকায় কলেজের প্রধান ফটকের সম্মূখ সড়কে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিমের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় উক্ত কর্মসূচীতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাবু শুকলাল দাশ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য গাজী জাফরউল্লা ,সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শিবু প্রসাদ চৌধুরী ,নাছির উদ্দিন,চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মলি­ক সবুজ,সম্পাদক খন্দকার নাঈমূল আজম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে শুকলাল দাশ বলেন বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের মহামারী আমাদের সকলকে একযোগে মোকাবেলা করতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সরকারী নির্দেশনা ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে আমাদেরকে চলতে হবে। যতবেশী আমরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখব , নিয়মিতি হাত ধোয়া থেকে শুরু করে যাবতীয় নিয়ম মেনে চলবো তত শীঘ্রই আমরা পরিত্রাণ পাব। এসময় অসহায় গরিবদের সহায়তায় এগিয়ে আসার জন্য তিনি বিত্তবানদের প্রতি আহবান জানান। চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম বলেন , বিশ্বব্যাপি এই মহামারির শুরু থেকে আমরা সাধারণ জনগণের পাশে থাকার চেষ্টা করছি ।
ইতিমধ্যে আমরা কলেজ ল্যাবে হ্যান্ডসেনিটাইজার তৈরী করে কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী , কর্মচারী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের মাঝে বিতরণ করেছি । এই ধারাবাহিক অংশ হিসাবে আজ আমরা গরীব অসহায় তিনশত পরিরারের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য চাল, ডাল,আল, পিয়াজ, তৈল প্রদান করেছি। আমাদের এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। চট্টগ্রাম শহরে যে কোন অভুক্ত পরিবারের পাশে থাকবে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন , চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা ইকবাল কায়সার, জামশেদ উদ্দিন, রিয়াজুল ইসলাম শান্ত, অর্ণব দেব,ওয়াহিদুর রহমান সুজন,মোস্তফা তারেক,কবিরুল আজম,মোঃ আকবর খান,গোবিন্দ দত্ত,মোঃহোসাইন চৌধুরী, আবু তোরাব আহমেদ প্রমুখ।
বিএসপি ফুড প্রোডাক্টস :
দেশের সুপ্রসিদ্ধ খাদ্য সামগ্রী প্রস্তুতকারক বি,এস,পি ফুড প্রোডাক্টস (প্রাঃ) লিমিটেড এর উদ্যোগে গত সোমবার নগরীর কাজীর দেউরীসহ বিভিন্ন এলাকায় কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
বিতরণকালে বি,এস,পি ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক অজিত কুমার দাশ বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে দেশের বেশিরভাগ মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে, আবার কেউ কেউ নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করায় বেকার হয়েছে। এ জন্য সরকারের পাশাপাশি বি,এস,পি ফুড এর অর্থায়নে এই সহযোগিতা প্রদান করা হয়েছে। সাধারণ মানুষ কর্মমুখী না হওয়া পর্যন্ত এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত থাকবে। বিজ্ঞপ্তি