মাদকাসক্ত একজনই পরিবার এবং সমাজকে ধ্বংসের জন্য যথেষ্ট

28

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি জে বি এম হাসান বলেছেন, মাদকাসক্ত একজনই একটি পরিবার এবং সমাজকে ধ্বংসের জন্য যথেষ্ট। এ জন্য শিক্ষাকাল থেকেই শিক্ষার্থীদের মাদক, জঙ্গিবাদ ও ইভটিজিং থেকে যুব সমাজকে দূরে থাকতে হবে। পরিবারের কোন সদস্য যাতে অপরাধে জড়িয়ে না পড়ে সেজন্য অভিবাবকদের সজাগ থাকাতে হবে। পরিবারের প্রতিটি শিশুকে নৈতিক শিক্ষা অভিবাবকদের মাঝ থেকে সৃষ্টি করতে হবে। পাঠ্য বইয়ের পাশাপাশি অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের নৈতিক শিক্ষ দিলে পরিবারের সন্তানরা বিপদগামী হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। গতকাল বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার এয়াকুবদন্ডী হুলাইন পাইরোল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও বিচারপতির পিতা শিক্ষক মরহুম এএফএম শামসুদ্দিনের এক স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
স্কুল পরিচালনা কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোহাম্মদ শামশুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন পটিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি সালাউদ্দিন মোহাম্মদ রেজা, পেট্রো বাংলার সাবেক মহাব্যবস্থাপক শামসুদ্দিন আহমদ, পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মতুর্জা কামাল মুন্সি, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পার্থ সারথী সাহা, স্কুলের দাতা সদস্য কায়সার চৌধুরী পিন্টু, গাজী প্রকাশনীর পরিচালক গাজী মোহাম্মদ মামুন, বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য নুরুল ইসলাম চৌধুরী, বিদ্যেৎসাহী সদস্য নাসির উদ্দিন ফারুকী, অভিভাবক সদস্য নাছির সুলতান চৌধুরী, মোহাম্মদ হাবিব, শাখাওয়াত হোসেন চৌধুরী, দিদারুল ইসলাম, মনোয়ারা বেগম, দাতা সদস্য জাকির হোসাইন, মারুফ চৌধুরী শামীম, গাজী মোহাম্মদ ফারুক, আবুল মনছুর, মহিউদ্দিন নাহিদ, সাইফুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন সবুজ মেম্বার, আবুল মনছুর, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবদুল মালেক, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্মকর্তা আবুল মনছুর। আলোচনা সভার আগে বিচারপতি জে বি এম হাসান এয়াকুবদন্ডী স্কুলে শেখ রাসেল ডিজিট্যাল কম্পিউটার ল্যাব উদ্বোধন করেন।