ব্র্যাক ব্যাংকের ৭শ এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট চালু

12

দেশব্যাপী চলমান সম্প্রসারণ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ৭০০টি এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটের মাইলফলক অতিক্রমকরেছে ব্র্যাক ব্যাংক। এখন সর্বমোট ৭০৫টি আউটলেটের মাধ্যমে গ্রাহকদের সেবা প্রদান করছে।
গ্রামীণ এলাকায় ৭৭% আউটলেট নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক এর এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রামীণ এলাকায় উপস্থিতি ইন্ডাস্ট্রিতে সবচেয়ে বেশি। এখন ১.৪০ লাখ গ্রাহককে সেবার আওতায় নিয়ে এসেছে। এখন এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে প্রতি মাসে ১.৮৬ লাখটি লেনদেন সম্পন্ন হয়, যার মোট পরিমাণ ১,৬০০ কোটি টাকা। অ্যাকাউন্ট খোলা, নগদ জমা ও উত্তোলন, ঋণ গ্রহণ, ঋণ পরিশোধ, বিদেশ থেকে পাঠানো টাকা গ্রহণ, ইউটিলিটি বিল প্রদান সহ সব ধরনের ব্যাংকিং সেবা পাওয়া যাচ্ছে এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটে। এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের ফলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাট-বাজারে দৈনন্দিন ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে গেছে। সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় অবস্থিত হওয়ায় ও বিভিন্ন ধরনের সেবার পাবার সুবিধা থাকায় এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট আর্থিক লেনদেনের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে।
ব্যাংকের শাখায় যেসব সেবা পাওয়া যায় এর সবই এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটে পাওয়া যায়। এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটগুলোতে ডিপিএস, এফডিআর, দৈনন্দিন লেনদেন, ফান্ড ট্রান্সফার, কর্পোরেট বিল কালেকশন, ক্রেডিট কার্ড বিল, বীমা প্রিমিয়াম, এসএমই লোন বিতরণ ও গ্রহণ, রিটেইল লোনের লিড জেনারেশন সহ যাবতীয় সব সেবা পাওয়া যায়।
২০১৮ সালের অক্টোবরে এজেন্ট ব্যাংকিং চালু করার পর থেকে এ নেটওয়ার্ক দ্রæত স¤প্রসারণ অব্যাহত রেখেছে ব্র্যাক ব্যাংক। ইতিমধ্যেই দেশের ৬৪টি জেলায় পৌঁছে গেছে। ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে ১,০০০টি আউটলেট চালুর পরিকল্পনা করা হয়েছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে মূলধারার ব্যাংকিং সেবা বহির্ভূত মানুষকে সেবা দেয়ার জন্য এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে শীর্ষস্থানীয় হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে ব্যাংকটি।
‘এজেন্ট অ্যাপ’এর মাধ্যমে এজেন্ট পার্টনাররা/স্টাফরা আউটলেটের বাইরেও গ্রাহকের ঘরে ঘরে গিয়ে ব্যাংকিং সেবা প্রদান করতে পারছেন, যা এ ইন্ডাস্ট্রিতে ব্র্যাক ব্যাংককে অন্যদের থেকে এগিয়ে রেখেছে। এজেন্ট পয়েন্টে টাকা জমা দেয়া মাত্র তা অ্যাকাউন্টে জমা হয় এবং তা ৩৭৫টি এটিএম, ১৮৭টি শাখা ও অনলাইন ব্যাংকিং ‘আস্থাঅ্যাপ’এর সাহায্যে তোলা যায়। শাখায় যেসব গ্রাহক অ্যাকাউন্ট খুলেছেন তারা বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন্স সম্পন্ন করে এজেন্ট আউটলেটেও সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। এ মাইলফলক অর্জন সম্পর্কে ব্র্যাক ব্যাংক এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আর. এফ. হোসেন বলেন, ব্যাংকিং সুাবধার বাইরে থাকা মানুষদেরকে ব্র্যাক ব্যাংক আনুষ্ঠানিক আর্থিক বলয়ের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। ব্যাংকিং সেবার বাইরে থাকা একটি বিশাল জনগোষ্ঠীকে ব্যাংকিংয়ের মূলধারায় অন্তর্ভুক্ত করতে ভূমিকা পালন করছে এজেন্ট ব্যাংকিং।
তিনি আরও বলেন, বায়োমেট্রিক যাচাইকরণ-সহ ডিজিটাল ক্ষমতাসম্পন্ন আমাদের এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেটগুলো গ্রাহকদেরকে সেবা দেয় যেকোনো সময় এবং যেকোনো জায়গায়। এজেন্ট ব্যাংকিং উত্তরোত্তর নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করছে এবং অর্থনীতি বিশেষ করে গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছে। আগামী বছরগুলোতে দেশের প্রতিটি প্রান্তে এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দিতে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রাখবো।
ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড সম্পর্কেঃ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাতের অর্থায়নে অগ্রাধিকার দেয়ার ভিশন নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড ২০০১ সালে যাত্রা শুরু করে, যা এখন পর্যন্ত দেশের অন্যতম দ্রæত প্রবৃদ্ধি অজনকারী একটি ব্যাংক। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ‘ইজঅঈইঅঘক’ প্রতীকে ব্যাংকটির শেয়ার লেনদেন হয়। ১৮৭টি শাখা, ৩৭৪ টি এটিএম, ৪৬১টি এসএমই ইউনিট অফিস, ৭০০টিরও বেশি এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট এবং ৮ হাজারেরও বেশি মানুষের বিশাল কর্মীবাহিনী নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক কর্পোরেট ও রিটেইল সেগমেন্টেও সার্ভিস দিয়ে আসছে। ব্যাংকটি দৃঢ় ও শক্তিশালী আর্থিক পারফরম্যান্স প্রদর্শন করে এখন সকল প্রধান প্রধান মাপকাঠিতেই ব্যাংকিং ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষে অবস্থান করছে। এগারো লাখেরও বেশি গ্রাহক নিয়ে ব্র্যাক ব্যাংক বিগত ২০ বছরেই দেশের সবচেয়ে বৃহৎ জামানতবিহীন এসএমই অর্থায়নকারী ব্যাংক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। দেশের ব্যাংকিং খাতে সুশাসন, স্বচ্ছতা ও নিয়মানুবর্তিতায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক। বিজ্ঞপ্তি