বিশ্ব পরিবেশ দিবস উদযাপন

5

ইপসা এসইপি প্রকল্প :
“প্রতিবেশ পুনরুদ্ধার, হোক সবার অঙ্গীকার” এ প্রতিবাদ্য বিষয় নিয়ে ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশন (ইপসা) কর্তৃক সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট (এসইপি’র) আওতায় ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস-২০২১’ উদযাপিত হয়। গত সোমবার সকাল ১০টায় ইপসা এইচআরডিসি সীতাকুন্ড ক্যাম্পাসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে র‌্যালী, বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পাশাপাশি পরিবেশ সুরক্ষায় পরিচ্ছন্নতা ক্যাম্পেইন আয়োজনের মাধ্যমে পরিবেশ ক্লাবের সদস্যরা প্লাস্টিক বর্জ্য অপসারন করেন। এবারের পরিবেশ দিবসে সংগঠনটির স্লোগান ছিল “গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান”, “আসুন সবুজ পৃথিবী গড়ি”, “প্রকৃতি বাঁচান, প্রজন্ম বাঁচান” ইত্যাদি। ‘ইপসা এসইপি’ প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক মো. মহসিন মিঞার পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সীতাকুন্ড উপজেলার এরিয়া ম্যানেজার মো. দিদারুল ইসলাম, ইপসা সৈয়দপুর এরিয়ার এরিয়া ম্যানেজার গোলাম মহিউদ্দিন, মুরাদপুর শাখার পরিবেশ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও রেডিও সাগরগিরি’র সিনিয়র প্রযোজক সঞ্জয় চৌধুরী, ইপসা-ইকোটুরিজম প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক ইমাম উদ্দিন খান, চাটগাঁর সংবাদ পত্রিকার চিফ রিপোর্টার মো. আফছার উদ্দিন লিটন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কিছু মানুষ ব্যক্তিস্বার্থ হাসিল করার জন্য প্রকৃতিকে ধ্বংস করছে। নির্বিচারে কাটছে বৃক্ষ। বনদস্যুদের দৌরাত্ম্যে উজাড় হচ্ছে বনাঞ্চল। পরিবেশ হারাচ্ছে তার ভারসাম্য। বৈশ্বিক উষ্ণতা এবং জলবায়ুর প্রভাবে দেশে অনাবৃষ্টি, বন্যা, খরার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিনিয়ত হচ্ছে। আমরা পাহাড় কাটছি। নদী- নালা, খাল-বিল, পুকুর-দিঘি ভরাট করছি। নদী আর সাগরে পলিথিন ও প্লাস্টিকের বর্জ্য ফেলে পরিবেশন দূষণ করছি। অনুষ্ঠানে ‘ইপসা এসইপি’ প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা, পরিবেশ ক্লাবের সদস্যগণ ও উপজেলার মাছ চাষী উদ্যোক্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে মিডিয়া পার্টনার ছিলেন “ রেডিও সাগরগিরি ৯৯.২এফএম ।
সন্দীপনা সাংস্কৃতিক ফোরাম :
সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন সন্দীপনা কেন্দ্রীয় সংসদের সঙ্গীত, নাটক, আবৃত্তি, চারুকলা ও লোককলা বিভাগের যৌথ আয়োজনে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত দিনব্যাপি পরিক্রমা ও আলোচনা অনুষ্ঠান ৫ জুন কাপ্তাই বাঙাল হালিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়। সন্দীপনার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ভাস্কর ডিকে দাশ মামুন বাঙাল হালিয়া ঋষি মঠ উদ্যানে সকাল ১০টায় বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে কর্মসূচির সূচনা করেন। দলের ২৫ জন সভ্য ও স্থানীয় সংস্কৃতি কর্মীগণ কর্মসূচিতে অংশ নেন। সকাল ১১টায় এক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন- বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক বিশ্লেষক দেবব্রত দে দেবু। সম্মানিত প্রধান অতিথি ও প্রধান আলোচক ছিলেন- ঋষি মঠ অধ্যক্ষ স্বামী সনাতন গিরি মহারাজ ও বর্ষিয়ান লোক কবি কবিয়াল আবদুল লতিফ।
সম্মানিত আলোচকবৃন্দের মাঝে ছিলেন- সাংবাদিক দেব প্রসাদ দেবু, অধ্যক্ষ শেখ এ রাজ্জাক রাজু, প্রধান শিক্ষক বাবুল কান্তি দাশ, গণমাধ্যমকর্মী মুকুল কান্তি সিকদার, সাংস্কৃতিক সংগঠক মোশারফ হোসেন খান রুনু, সংগঠক উজ্জ্বল কান্তি বড়ুয়া, সাংবাদিক তাজুল ইসলাম রাজু, ডা. ডি কে ঘোষ, কবিয়াল সন্তোস কুমার দে, সংগঠক প্রণব রাজ বড়ুয়া, আইটি এক্সপার্ট মো. রাকিব, বাচিক শিল্পি মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী ও নাট্যকর্মী নন্দীনি দেব, এমরান হোসেন মিঠু প্রমুখ।
ইয়াং বয়েজ :
বিশ্ব পরিবেশ দিবস ৫ জুন উপলক্ষে মুজিববর্ষে অঙ্গীকার করি, সোনার বাংলা সবুজ করি’এ স্লোগানকে সামনে রেখে আউটার রিং রোডের বে-টার্মিনাল এলাকায় ৭ জুন বিকেল ৫ টায় সামাজিক সংগঠন ইয়াং বয়েজের সার্বিক সহযোগিতায় ও ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য আবু নাছের জুয়েলের নেতৃত্বে বিভিন্ন জাতের শতাধিক চারাগাছ রোপন করে বৃক্ষরোপণ অভিযান ২০২১ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেবাশীষ পাল দেবু। বৃক্ষরোপন কর্মসূচীর উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, বৈশ্বিক আবহাওয়া পরিবর্তনের প্রথম কারন বৃক্ষ নিধন। যদি কোন কারণে আমাদেরকে বৃক্ষনিধন করতে হয় সে ক্ষেত্রে একটির বদলে পাঁচটি ঘাছ রোপন করতে হবে। বৃক্ষরোপন অভিযানে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আবু নাছের জুয়েল বলেন, উন্নয়ন প্রকল্পসমূহ পরিবেশ বান্ধব করে গড়ে তুলতে আমাদের প্রতিকী কর্মসূচি এবারের বৃক্ষরোপন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৃক্ষরোপনের আহব্বানকে সঠিক বাস্তবায়নের জন্য আমাদের কার্যক্রম চলমান থাকবে। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, শ্রমিকনেতা কামাল উদ্দীন স্বপন, অনুপম চন্দ্র দেবনাথ, যুবনেতা সাজ্জাদ হোসেন পাবেল, মো. সোহেল, আনিসুর রহমান শরিফ, ওমর ফারুক মুন্না, মো. রহমান, মো. হারুন, মো. মিরাজ। ছাত্রনেতা, মো. আরমান, ইসমাইল হোসেন শামীম, মেহেদী হাসান অন্তর, আওলাদ হোসেন বাবু, আবু সাইদ, ইমাম হোসেন প্রান্ত, রাজা শাহ, মো. আল আমিন রায়হান, এম এ মান্নান মিনহাজ, মো. বাবলু, মো. রাহাত, মো. প্রিন্স, মো. নাসিমুর রাফি, মো. বাবু, নেজাম, রহমান সহ প্রমুখ।