বিশ্বমানের হৃদরোগ হাসপাতাল হচ্ছে চট্টগ্রামে

51

পূর্বদেশ অনলাইন
আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই চট্টগ্রামে চালু হচ্ছে বিশ্বমানের বিশেষায়িত হৃদরোগ হাসপাতাল। প্রথমে নগরের গোলপাহাড়স্থ মেরী স্টোপস ক্লিনিকের পাশে একটি ভাড়া বাসায় এর কার্যক্রম পরিচালিত হবে৷ এরপর সেটি নগরের খুলশীতে অবস্থিত হলি ক্রিসেন্ট হাসপাতালে অস্থায়ীভাবে স্থানান্তর করা হবে। পরে নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটিতে স্থায়ীভাবে হাসপাতালটি চালুর পরিকল্পনা আছে জেলা প্রশাসনের। বুধবার (৩ আগস্ট) বিকেলে এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান। তিনি বলেন, এ হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা প্রদানের জন্য ইতোমধ্যে অনেকেই মতপ্রকাশ করেছেন। ঢাকা ও চট্টগ্রামের প্রখ্যাত হৃদরোগ চিকিৎসকদের নিয়ে একটি প্যানেল করা হবে।সপ্তাহে অন্তত এক-দুই দিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা সেবা দেবেন। চট্টগ্রামের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরাও থাকবেন। নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটিতে একটি পরিত্যক্ত বাড়ি রয়েছে সেটি আমরা প্রতীকী মূল্যে নেওয়ার জন্য প্রস্তাবনা দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিলেই এর কার্যক্রম পরিচালনা করব। এ হাসপাতালটি চট্টগ্রামের বিভিন্ন শিল্পপতি, ধনাঢ্য ব্যক্তি, ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা, দান অনুদানের মাধ্যমে পরিচালিত হবে। চট্টগ্রামের মানুষের জন্য বিশ্বমানের একটি হৃদরোগ হাসপাতালের খুব দরকার। ইতোমধ্যে আমরা এনওসি, লাইসেন্সসহ সব ধরনের কার্যক্রম সম্পন্ন করেছি। চট্টগ্রামে হৃদরোগ হাসপাতালের যাত্রা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিবকে প্রধান করে হাসপাতালের যাত্রা শুরু করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়।প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউসকে প্রেসিডেন্ট করে চট্টগ্রাম হার্ট ফাউন্ডেশনের ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সেক্রেটারি জেনারেল হচ্ছেন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. প্রবীর কুমার দাশ। কমিটিতে আছেন ব্যবসায়ী নেতা আবদুস সালাম, নাছির উদ্দিন চৌধুরী, এসএম আবু তৈয়ব, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সেলিম জাহাঙ্গীর, বর্তমান অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সাহেনা আকতার, ডা. তারেক ইকবাল, ডা. একেএম নাছির উদ্দিন।