বিশ্ববাজারে ভারতের গম রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা শিথিল

5

 

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার প্রতিবেশী দেশগুলো ছাড়াও বিশ্বের অন্যান্য দেশে গম রপ্তানির ওপর যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল তা শিথিল করেছে। সরকার ১৩ মে’র মধ্যে রপ্তানি চালানগুলোকে খালাস দিয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞার পর, সোমবার যখন বিশ্ববাজার খোলা হয় তখন আন্তর্জাতিক দাম প্রতি বুশেল (৬০ পাউন্ড বা এক মিলিয়ন কার্নেল বা ২৭.২১ কেজি) প্রায় ৬ শতাংশ বেড়ে যায়।
এর পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় সরকার মঙ্গলবার গম রপ্তানি সীমাবদ্ধ করার আদেশে শিথিলতা ঘোষণা করে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে যেখানেই গমের চালানগুলি পরীক্ষার জন্য কাস্টমসের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং ১৩ মে বা তার আগে তাদের সিস্টেমে নিবন্ধিত করা হয়েছে, এই ধরনের চালানগুলো রপ্তানির জন্য অনুমোদিত হবে।’
এতে আরও বলা হয়, সরকার মিশরের গমের চালানেরও অনুমতি দিয়েছে, যা ইতিমধ্যেই কান্ডলা বন্দরে লোড হচ্ছে। কান্ডলা বন্দরে গমের কার্গো লোড করার অনুমতি দেওয়ার জন্য মিশরীয় সরকারের অনুরোধের পরে এ অনুমতি দেওয়া হয়। মেসার্স মেরা ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড, মিশরে গম রপ্তানির জন্য নিযুক্ত কোম্পানি। তারা ৬১,৫০০ মেট্রিক টন গমের লোডিং সম্পূর্ণ করার দায়িত্ব নিয়েছে যার মধ্যে ৪৪,৩৪০ মেট্রিক টন গম ইতিমধ্যে লোড করা হয়েছে এবং মাত্র ১৭,১৬০ টন গম লোড করা বাকি ছিল।
সরকার সম্পূর্ণ চালানের অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে শনিবার কেন্দ্র গমের সমস্ত চালান নিষিদ্ধ করেছিল। শুধুমাত্র দুই ধরনের চালানের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল: কেন্দ্র কর্তৃক অন্যান্য দেশে তাদের খাদ্য নিরাপত্তার চাহিদা মেটাতে এবং তাদের সরকারের অনুরোধে অনুমতির ভিত্তিতে রপ্তানি; এবং চুক্তিবদ্ধ রপ্তানি যার বিরুদ্ধে ক্রেডিট অপ্রত্যাহারযোগ্য চিঠিগুলি ইতিমধ্যেই জারি করা হয়েছে এই বিজ্ঞপ্তির তারিখে বা তার আগে, নির্ধারিত হিসাবে ডকুমেন্টারি প্রমাণ জমা দেওয়া সাপেক্ষে।