বিভিন্ন রাষ্ট্রের সাথে সুসম্পর্ক তৈরিতে সক্ষম হন বঙ্গবন্ধু

7

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক স্মারক বক্তৃতা, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও বিশেষ বক্তৃতা প্রতিযোগিতা ২২ জুন বেলা ১১টায় জীব বিজ্ঞান অনুষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার।
স্মারক বক্তা ছিলেন চবি বঙ্গবন্ধু চেয়ার ইতিহাসবিদ প্রফেসর ড. মুনতাসীর মামুন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সানসাইন গ্রামার স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সাফিয়া গাজী রহমান। চবি জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. নাজনীন নাহার ইসলামের সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন চবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. সজীব কুমার ঘোষ ও চবি কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মো. হানিফ সিদ্দিকী। অনুষ্ঠানে চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এস এম মনিরুল হাসান, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. লুলু ওয়াল মারজান, প্রফেসর ড. এস এম রফিকুল ইসলাম এবং বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
উপাচার্য তাঁর ভাষণের শুরুতে মহাকালের মহানায়ক স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। একইসাথে জাতির পিতার জীবন ও কর্ম নিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করায় আয়োজকবৃন্দকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, জাতির পিতার জীবন ও কর্ম নিয়ে সেমিনার, সিম্পোজিয়াম, স্মারক বক্তৃতা আয়োজন খুবই প্রাসংগিক। জাতির পিতাকে নিয়ে যত বেশি সেমিনার, সিম্পোাজিয়াম ও কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে; প্রজন্মের সন্তানেরা জাতির পিতা সম্পর্কে তত বেশি জানতে পারবে। মাননীয় উপাচার্য বলেন, এ মহান নেতা দেশের মানুষকে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করতে এবং দেশের মানুষকে সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধিতে রাখতে আজীবন লড়াই-সংগ্রাম করে গেছেন।
তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার পর অল্প সময়ের মধ্যে এ মহান নেতা দেশের স্বার্থ অক্ষুন্ন রেখে বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রের সাথে সুসম্পর্ক তৈরি করতে সক্ষম হয়েছিলেন; বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছ থেকে পেয়েছিলেন অকুন্ঠ সমর্থন ও সহযোগিতা। তাইতো বিশ্বের প্রথম সারির নেতাদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম বিশ্বনেতা। অনুষ্ঠান শেষে মাননীয় উপাচার্য বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।
জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সূচিত হয়। অনুষ্ঠানে চবি কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. হানিফ সিদ্দিকী’র তত্ত্বাবধানে নির্মিত ‘খোকা থেকে বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক এনিমেটেড চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয় এবং ‘আমার ভাবনায় বঙ্গবন্ধু’ বিষয়ের উপর শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তৃতা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিভাগের শিক্ষার্থী এ কে এম আবদুল্লাহ সিদ্দিকী সাকিন ও সুস্মিতা বড়–য়া। বিজ্ঞপ্তি