বিতর্ক প্রতিযোগিতা মানসিক উৎকর্ষ সাধনে সহায়ক : ড. অনুপম সেন

51

সম্প্রতি বাংলাদেশ শিশু একাডেমি-চট্টগ্রামে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি রানার আপ হয়েছে। প্রতিযোগিতায় ১২ টি বিশ্ববিদ্যালয় অংশগ্রহণ করে। চূড়ান্ত পর্বে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির পক্ষ থেকে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি (পিইউডিএস)-এর সাম্পান দল ইউএসটিসির সাথে বিতর্কে অংশ নিয়ে রানার আপ হয়।
গতকাল বেলা ১ টায় নগরীর প্রবর্তক মোড়স্থ’ প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি অডিটোরিয়ামে সাম্পান দল উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেনের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হয়। এই দলের সদস্যরা হলেন আরিফুল ইসলাম, কাজী নুরুল হক ও মার্সেল অনিক হালদার। এসময় উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার খুরশিদুর রহমান, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটির চিফ মডারেটর সহকারী অধ্যাপক জুলিয়া পারভীন, মডারেটর সহকারী অধ্যাপক সঞ্জয় বিশ্বাস, সহকারী অধ্যাপক হিল্লোল সাহা, সহকারী অধ্যাপক মিনহাজ হোসাইন, সহকারী রেজিস্ট্রার আকলিমা আকতার আঁখি ও ইঞ্জিনিয়ার আবু রাসেল চৌধুরী প্রমুখ।
উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেনের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়ার পর তিনি বিতর্ক প্রতিযোগিতাকে ‘মানসিক উৎকর্ষ সাধনে সহায়ক’ উল্লেখ করে বলেন, আমি আশা করি, ভবিষ্যতেও প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি এ ধরনের বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির মর্যাদা বৃদ্ধি করবে। তিনি যুক্তির মাধ্যমে তর্ক পরিচালিত হয় উল্লেখ করে বলেন, মানবজীবনের সর্বক্ষেত্রে তর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বস্তুত এই তর্ক মানুষের চিন্তা-শক্তিকে শাণিত করে। তিনি যুক্তি প্রতিষ্ঠার জন্য তর্কের প্রয়োজন রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, সমাজ-সভ্যতার অগ্রগতিতে বিজ্ঞানের গুরুত্ব অপরিসীম। আর এই বিজ্ঞান যুক্তির উপরই সম্পূর্ণ নির্ভরশীল। খবর বিজ্ঞপ্তির