বিজয় দিবসে গভীর শ্রদ্ধায় শহীদদের স্মরণ

86

পেকুয়া :
কক্সবাজারের পেকুয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় ৪৮তম মহান বিজয় দিবস উদ্যাপিত হয়েছে। সোমবার উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে বীর শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। ওই দিন সকালে পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাঈকা শাহাদাতের নেতৃত্বে পেকুয়া উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উম্মে¥ কুলছুম মিনুর নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, পেকুয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মো. কামরুল আজম ও ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে পেকুয়া থানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটির আহবায়ক আবু হেনা মোস্তফা কামাল ও সদস্য সচিব আবুল কাশেমের নেতৃত্বে উপজেলা আওয়ামী লীগ, পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এম দিদারুল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. বারেক, সহ সভাপতি জিয়াউল হক জিকু ও সাংবাদিক জালালের নেতৃত্বে যুবলীগ, যুবদলের আহবায়ক কামরান জাদিদ মুকুটের নেতৃত্বে বিএনপির অংগ ও সহযোগী সংগঠন, উপজেলা এড. রাশেদুুল কবির ও আলী হোসেনের নেতৃত্বে আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, প্রভাষক জাকির হাওলাদার, জাহাঙ্গীর আলম ও এফএম সুমনের নেতৃত্বে ‘নোঙ্গর’ জেলা ইউনিটি, শহীদ জিয়াউর রহমান উপকূলীয় কলেজ, বি.এম.আই কলেজ, পেকুয়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতিসহ সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানসমূহ শহীদ মিনারে পুষ্প মাল্য অর্পণ করেন। এ বিজয়ের দিনটিকে সামনে রেখে ১৪ ডিসেম্বর থেকে ৩দিন পর্যন্ত বর্ণিল আলোক সজ্জায় সজ্জিত ছিল উপজেলা পরিষদ ভবন, পেকুয়া থানা, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার কার্যলায় ও ইসলামী ব্যাংক পেকুয়া শাখা। এদিকে ১৬ ডিসেম্বর সকাল ৯টা থেকে বিকেল পর্যন্ত শহীদ জিয়াউর রহমান উপকূলীয় কলেজ মাঠে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে কুচকাওয়াজ, অভিবাদন, ডিসপ্লে প্রদর্শন, মুক্তিযোদ্ধাদের বিশেষ সংবর্ধনা, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ ও বিভিন্ন ইভেন্টে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাঈকা শাহাদাত, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেযারম্যান উম্মে কুুলছুম মিনু ও পেকুয়া থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি কামরুল আজম প্যারেড মাঠ পরিদর্র্শন শেষে অভিবাদন গ্রহণ করেন। প্যারেড কমন্ডার এসআই ইয়াকুবুুল ইসলাম নেতৃত্বে কুচকাওয়াজে অংশ নেয় পেকুয়া থানা পুুলিশ, আনসার বাহিনী, দমকল বাহিনী, পেকুয়া সরকারি মডেল জিএমসি ইনস্টিটিউশন, পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যাল, শিলখালী উচ্চ বিদ্যালয়, বারবাকিয়া হোসনে আরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পেকুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, আনোয়ারুল উলুম ইসলামিয়া আলিম মাদ্র্রাসা, মেহেরনামা উচ্চ বিদ্যালয়, পেকুয়া প্রি-ক্যাডেট স্কুল এন্ড কলেজ, সাবেক গুলদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ছালেহা কবির সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর মেহেরনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পেকুয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বারবাকিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও শহীদ জিয়াউর রহমান উপকূলীয় কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। অভিবাদন ও কুচকাওয়াজ শেষে রং বেরং এর বেলুন উড়িয়ে ৪৮তম মহান বিজয় দিবসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ইউএনও সাঈকা শাহাদাত। সকাল ১০টায় শুরু হয় উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহনের দৃৃষ্টিনন্দন ডিসপ্লে। দুপুুরে দেওয়া হয় বীর মুুক্তিযোদ্ধাদের গোলাপি অভিনন্দন ও সংবর্ধনা। এ উপলক্ষে ইউএনও সাঈকা শাহাদাত এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় এক আলোচনা সভা। সভায় বক্তব্য রাখেন- উপজেলা পষিদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উম্মে কুলছুম মিনু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্ততি কমিটির সভাপতি আবুহেনা মোস্তাফা কামাল, সদস্য সচিব আবুল কাশেম, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এড. কামাল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা কমন্ডার ছাবের আহমদ ও রমিজ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় স্মার্ট কার্ড। এদিকে বিকেল ৩টায় বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ডিসপ্লে, প্রীতি ফুটবল ম্যাচসহ বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ গ্রহণকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। ঐতিহাসিক ঘটনার প্রামাণ্য চিত্রের উপর ডিসপ্লে প্রদর্শনীতে সিনিয়র গ্রূপে প্রথম স্থান অর্জন করেছে পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও জুনিয়র গ্রূপে প্রথম স্থান অধিকার করেছে পেকুয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন পেকুয়া প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি হানিফ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির উদ্দিন।
গুইমারা :
‘আমি বাঙালি, বাংলা আমার দেশ, বাংলা আমার ভাষা’ এ শ্লোগানে নানা আয়োজনে পার্বত্য জনপদ খাগড়াছড়িতে উদযাপিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস। সকালে একত্রিশবার তোপধ্বনি শেষে জেলার নবসৃষ্ট গুইমারা উপজেলার শহীদ মিনারে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে নিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মককর্তা তুষার আহমেদ। পরে গুইমারা মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অস্থায়ী স্মৃতিসৌধে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, পুলিশ, আনসার, ভিডিপি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে কুচকাওয়াজ ও শরীর চর্চা প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার আহমেদ বলেন, যাদের বুকের তাজা রক্তের বিনিময়ে আমরা আজ স্বাধীনতা পেয়েছি জাতির সেই শ্রেষ্ঠ সন্তানদের ভুলে গেলে বাংলাদেশকে অস্বিকার করা হবে। পরে উপজেলার সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এছাড়াও সন্ধ্যায় মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে উপজেলা প্রশাসন।
বিলাইছড়ি :
সারাদেশের ন্যায় নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে রাঙামাটির বিলাইছড়িতে সোমবার যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিলাইছড়ি থানায় ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপন শুরু হয়।
ধারাবাহিক প্রক্রিয়ায় উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, রাজনৈতিক দল, সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক সংগঠন কর্তৃক শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরে মহান মুক্তিযদ্ধের শহীদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. গোলাম ফারুক ও সহকারি শিক্ষক সুমি চক্রবর্তির সঞ্চালনায় সকাল ৮ টায় দীঘলছড়ি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দিবস উদযাপন মঞ্চে প্রধান অতিথি ছিলেন- উপজেলা চেয়ারম্যান বীরোত্তম তঞ্চঙ্গ্যা। এসময় ইউএনও পারভেজ চৌধুরী এবং বিলাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ পারভেজ আলী উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। প্যারেড ময়দানে বিলাইছড়ি থানা পুলিশ আনসার, ভিডিপি এবং বিভিন্ন বিদ্যালয়ের স্কাউট দলের পক্ষ থেকে কুচকাওয়াজ ও সালাম নিবেদন করা হয়। সালাম গ্রহণের পর উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউনও এবং থানা অফিসার ইনচার্জ প্যারেড পরিদর্শন করেন।
কুচকাওয়াজ শেষে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নির্ভর ডিসপ্লে প্রদর্শন করা হয়। পরে বিভিন্ন ইভেন্টে ক্রীড়ানুষ্ঠান ও প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। খেলাধুলা শেষে খেলায় প্রতিযোগিদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। সন্ধ্যায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিবস উদযাপন সমাপ্তি ঘটে
দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল :
দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সাইফুদ্দীন সালাম মিঠুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মনজুর আলম তালুকদারের সঞ্চালনায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহব্বায়ক আবু সুফিয়ান। উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহব্বায়ক আলী আব্বাস, সদস্য সচিব মোস্তাক আহমদ খান, সিনিয়র সদস্য অধ্যাপক শেখ মো. মহিউদ্দিন, মনজুর উদ্দিন চৌধুরী, সিরাজুল ইসলাম সওদাগর, শাফায়েত উল্লাহ চক্ষু, বাহাউদ্দীন চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি এড. মহিউদ্দিন সিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফৌজুল কবির ফজলু, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আবদুস সবুর, যুগ্ম সম্পাদক শফিউল করিম শফি, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী আজাদ, কামাল হোসেন, মোনায়েম খান, রেজাউল করিম মাসুদ, শাখাওয়াত হোসেন, গাজী ফোরকান, নাছির উদ্দিন দিদার, হান্নান রহিম, তৌহিদুল ইসলাম, আ.ক.ম এনামুল হক, সেলিম চৌধুরী, শাহ নেওয়াজ, ইদ্রিস মানিক, শহিদুল ইসলাম, আবু তৈয়ব মাহীর, এম এ রহিম, মো. আবছার, মো. সোহেল প্রমুখ।
দক্ষিণ জেলা ছাত্রদল :
দক্ষিণ জেলা ছাত্রদল আওতাধীন সকল উপজেলা, পৌরসভা ও কলেজ শাখার নেতৃবৃন্দ সকাল থেকে বিভিন্ন প্লে-কার্ড, ব্যানার, ফেস্টুন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্বলিত টুপি, গেঞ্জি সহকারে নগরীর নিউ মার্কেট চত্বরে জমায়েত হয়ে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে শেষ হয়। উক্ত র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ইকবাল হায়দার চৌধুরী, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী মনির, আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি জিয়াউল কাদের জিয়া, বোয়ালখালী উপজেলা ছাত্রদলের আহব্বায়ক মহসিন খোকন, চন্দনাইশ সভাপতি তরিকুল ইসলাম টুটুল, সাতকানিয়া সভাপতি মো. নাজিম উদ্দিন, বাঁশখালী সভাপতি আবদুল আলিম, কর্ণফুলী সভাপতি মো. কায়সার চৌধুরী, মো. ফারুক, মিজানুর রহমান সিকদার, শামসুল হুদা ফাহিম, জিয়াউল হাসান হোসাইনী, ওসমান গণি মুজাহিদ, দিদার চৌধুরী, নুরুল ইসলাম, সাজ্জাদ হোসেন বাবর, ওমর ফারুক, জেলা ছাত্রদল নেতা নিজাম উদ্দিন, মো. আরিফ, ইমন শাহ্, এ এম তারেক রহমান, মাঈনুদ্দিন, দিলদার হোসেন রানা, মো. ওয়াসিম, আজাদ, আবদুল লতিফ, মনির, শওকত, বাবলু, মিশু, জমির, জুয়েল, সিরাজ, শহিদুল্লাহ ফরহাদ, আজিজ, মিজান, শাহজান, ফয়সাল আরাফাত, আবদুর রহিম, জব্বার প্রমুখ।
জাতীয় কবিতা মঞ্চ, আমিরাত :
মহান বিজয় দিবস উদযাপন ও বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে কবিতা উৎসবসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছে জাতীয় কবিতা মঞ্চ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটি। গতকাল সন্ধ্যা ৭টায় আবুধাবির রজনীগন্ধা খান সিআইপি হলে যথাযথ মর্যাদায় এ বিজয় উৎসবের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের কর্মসূচিতে ছিল অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, জাতীয় পতাকা উত্তোলন, মুক্তিযুদ্ধে শহীদ, আত্মদানকারী ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিশেষ দোয়া-মোনাজাত, বিজয় দিবসের কেক কাটা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, বিজয়ের কবিতা আবৃত্তি, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের ভয়াবহ দিনগুলোর উপর শীর্ষক আলোচনা সভা, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচ্চিত্র প্রদর্শন, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, বর্ষসেরা কবি ও তাদের পুরস্কার প্রদান এবং প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটির সম্মানে মেজবান।
জাতীয় কবিতা মঞ্চ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ মুসার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মনিরউদ্দিন মান্নার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম খান সিআইপি। সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম,বীর মুক্তিযোদ্ধা জাকের হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা নুর আলম পক্ষে তার পুএ শিবলু মাহবুদ সম্মাননা গ্রহণ করেন।
সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের এদিনে বাঙালি জাতি স্বাধীনতা সংগ্রামের চূড়ান্ত বিজয় অর্জন করে। অনুষ্ঠান শেষে মুক্তিযোদ্ধা ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
সন্দ্বীপ এসডিআই :
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সন্দ্বীপ হরিশপুর ইউনিয়নে সোসাইটি ফর ডেভেলপমেন্ট ইনিসিয়েটিভ এসডিআই সমৃদ্ধি কর্মসূচির উদ্যোগে শিক্ষা সহায়তা কেন্দ্রের শিক্ষার্থীদের নিয়ে চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।
ছোট ছোট শিশুদের মাঝে ৫২ ও ৭১ এর চেতনাবোধ জাগ্রত করা এবং তাদের সৃজনশীল কাজে যুক্ত করা এ প্রতিযোগিতার উদ্দেশ্য বলে জানান, সমৃদ্ধি কর্মসূচীর প্রকল্প সমন্বয়কারী আনোয়ার পারভেজ। প্রতিযোগিতা পরবর্তী পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
জালালাবাদ ওয়ার্ড আ.লীগ :
নগরীর ২নং জালালাবাদ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ আয়োজিত বর্ণাঢ্য বিজয় র‍্যালিতে প্রধান অতিথি ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ। র‌্যালিটি টেকনিক্যাল মোড় থেকে শুরু হয়ে রুবি গেট, টেক্সটাইল, বাংলাবাজার মোড়, শেরশাহ, অক্সিজেন মোড়, বালুচরা সহ বায়েজিদ এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মহানগর যুবলীগ নেতা প্রকৌশলী আবু মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য মোহাম্মদ ঈসা, চন্দনাইশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য দিদারুল আলম চৌধুরী, বায়েজিদ থানা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আব্বাস উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা আলী আহমেদ শাহীন, লোকমান হাকিম কুতুবী, নাজিম উদ্দিন, মোহাম্মদ আজম, মোহাম্মদ হুমায়ন, ফজল আমিন, মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, বাহার উদ্দিন, তৈয়বুর রহমান তুহিন, কামাল উদ্দিন, মিল্টন বড়–য়া, সামছুদ্দীন বাদল। উপস্থিত ছিলেন রেদোয়ান আহমেদ লেদু, জসিম উদ্দিন, সেলিম উদ্দিন বাদশা, এমদাদ হোসেন, আশিকুর রহমান খোকন, মোহাম্মদ ওসমান গনি, মো. নিশাদ, মোহাম্মদ জুয়েল, সাইফ উদ্দিন, বেলাল উদ্দিন, মো. মনসুর, মো. মাসুদ, জসিম উদ্দিন , মো. মনির, মো. শাকিল, মোশারফ হোসেন, নুরুল হক মনির, ইকবাল হাসান বাবু, নূরে আলম মুন্না, শেখ ফজলে রাব্বি, রাকিব রেজা, নাজিম উদ্দিন, পারভেজ তারেক প্রমুখ।
চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট :
চট্টগ্রাম পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে ও ননটেক বিভাগের শিক্ষক আমান উল্লাহ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের অব. অতিরিক্ত সচিব মুক্তিযোদ্ধা বাবুল মজুমদার, বিশেষ বক্তা ছিলেন মহানগর যুবলীগ নেতা আবু মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগ নেতা মোশারফ হোসেন, নুরুল হক মনির, বেলাল উদ্দিন, আনিসুল ইসলাম সাজিদ, ইসাসিন আরাফাত বাপ্পী, শেখ রাকেশ উদ্দিন, মহিউল আলম চৌধুরী, পলিটেকনিক ছাত্র সংসদের ভিপি কাম্বার হোসেন রকি, পলিটেকনিক ছাত্রলীগের সভাপতি ইকরামুল কবির, সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান সজিব, ছাত্র সংসদের জিএস শাহাদাত হোসেন ওমর। উপস্থিত ছিলেন সাজু চৌধুরী, রাকিব শাওন, তৌহিদুল ইসলাম, মো. লিমন, সরোয়ার আলম সুজন, তাহমিদ, নেজাম উদ্দিন মহিন, আনোয়ার হোসেন, শাহরিয়ার রিজবী, আকবর, মো. মাসুম, সাজ্জাদ হোসেন, আরমান চৌধুরী, মোহাম্মদ কাউসার, মো. ইয়াসিন প্রমুখ।
বড়ঠাকুর পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় :
রাউজানের বড়ঠাকুর পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা বিদ্যালয় হল রুমে অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাংবাদিক তৈয়ব চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন পূর্ব গুজরা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আজিম।
প্রধান আলোচক ছিলেন ১০নং পূর্ব গুজরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মোহাম্মদ হোসেন মাহমুদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা পিউ মুৎসুদ্দী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সিনিয়র শিক্ষক প্রণব বৈদ্য। বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক অশোক কুমার বড়ুয়ার পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির শিক্ষানুরাগি সদস্য সিরাজুল হক, পূর্ব গুজরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল কাইয়ুম, প্রচার সম্পাদক জমির ইসলাম, সাংবাদিক এম.রমজান আলী, মাওলানা আশেকুর রহমান, পূর্ব গুজরা উচ্চ বিদ্যালয়ের মো.খালেদ, মো.মহিউদ্দিন। বক্তব্য রাখেন- বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মো. মোরশেদ আলম, মুন্নি রানী শীল, হালিমা বেগম, জামাল উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।