বাবা-মাকে জখমের পর আরেকজনকে কুপিয়ে হত্যা

20

রাঙামাটি প্রতিনিধি

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে এক ট্রাক্টর চালককে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকাল তিনটার দিকে উপজেলার সারোয়াতলী ইউনিয়নের শিজক গলাচিপা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সরল চাকমার (৫০) বাড়ি এলাকায়। পরে উত্তেজিত জনতার গণপিটুনিতে ঘাতক মঞ্জু চাকমাও (৩০) নিহত হন।
বাঘাইছড়ি থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে ঘাতক মঞ্জু চাকমা তার মা কালোচুলি চাকমাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায়। এসময় স্ত্রীকে বাঁচাতে তার বাবা রত্নকুমার চাকমা এগিয়ে আসলে তাকেও কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। পরে মঞ্জু চাকমা ঘর থেকে পালিয়ে যায়। আহত রতœকুমার চাকমাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বাঘাইছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে হাসপাতালের চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এদিকে গতকাল শনিবার দুপুর ৩টার দিকে মঞ্জু চাকমাকে পালিয়ে যেতে দেখে আটকের চেষ্টা করে এলাকাবাসী। এ সময় সরল চাকমা মঞ্জু চাকমাকে ধরতে গেলে মঞ্জুর হাতে থাকা ধারালো দায়ের কোপে ঘটনাস্থলে সরল চাকমা নিহত হন। এর পরপরই উত্তেজিত শতাধিক গ্রামবাসী মঞ্জুকে ধরে গণপিটুনী দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মঞ্জুর মৃত্যু হয়। সারোয়াতলি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অতুল বিহারি চাকমা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাৎ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মঞ্জু চাকমা একজন মানসিক রোগী। পুলিশের একটি টিমকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। ফিরে আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান বাঘাইছড়ি থানার ওসি।