বাঙালির হৃদয়ে মানবিক বঙ্গবন্ধু

21

মুহাম্মাদ সাজিদুল হক

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের কাছে এক অনুপ্রেরণার নাম। বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্র সৃষ্টির সঙ্গে ওতোপ্রতভাবে জড়িয়ে আছে জাতির অবিসংবাদিত নেতার নামটি। বঙ্গবন্ধু এমন একজন নেতা ছিলেন, সাধারণ মানুষের কল্যাণই ছিল যাঁর মুখ্য উদ্দেশ্য। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একে অপরের পরিপূরক। তরুণ সমাজের কাছে শেখ মুজিবুর রহমান এক উদ্দীপনার নাম। তিনি এই তরুণ সমাজের কাছে একাধারে জীবন- সংগ্রাম, অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ও আদর্শের প্রতীক, অসা¤প্রদায়িক বাংলাদেশের কারিগর, উদার ব্যক্তিত্ব এবং একজন সফল রাজনীতিবিদ। বঙ্গবন্ধুর বজ্রকণ্ঠেই মানুষের মনে স্বাধীনতার বীজ রোপিত হয়েছিল। পরবর্তীতে ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি। ১৯৫২-এর ভাষা আন্দোলনের সময় থেকেই তিনি তরুণদের কাছে জনপ্রিয় ছিলেন। তিনি প্রায় বক্তব্যেই বলতেন, একটি দেশের সমস্যা এবং সম্ভাবনা দুটিই তরুণ সমাজের ওপর অনেকাংশে নির্ভর করে। ছাত্রজীবন থেকে দেশ ও জাতির স্বার্থে সংগ্রাম করতে গিয়ে বারবার তিনি কারাভোগ করেছেন। তারপরও বঙ্গবন্ধুকে কেউ থামিয়ে রাখতে পারেননি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দেশের জন্য লড়াই করেছেন। তিনি বিশ্বাস করতেন এ দেশ সোনার বাংলায় রূপান্তরিত হবে একদিন । বঙ্গবন্ধু বারবারই মানুষের দুর্দশায় তাদের পাশে ছুটে গেছেন। তাদের সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি তিনি তাদের মাথা তুলে দাঁড়ানোর প্রয়োজনীয়তা নিয়ে সাহস দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর রাজনীতির মূল জায়গায় ছিল বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়। শাসক শ্রেণি জনগণের ন্যায্য দাবি মানতে অস্বীকার করলে তিনি রাজনৈতিক আন্দোলন গড়ে তুলেছেন। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট সেই ভয়াল কালরাত্রে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী কয়েকজনের ফাঁসি হয়েছে। কয়েকজন বিদেশে পালিয়ে আছে। তাদেরও অবিলম্বে ফিরিয়ে শাস্তি কার্যকর করতে হবে।
সেই ভয়াল রাত্রে আমরা বঙ্গবন্ধুকে হারালেও তাঁর সততা, দেশপ্রেম, বলিষ্ঠ নেতৃত্ব, সাহসী পররাষ্ট্রনীতির মাধ্যমে আমরা খুঁজে পাবো তাঁর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণে রাত-দিন কাজ করে যাওয়া তার উত্তরসূরি দুই সহোদর কন্যা মাঝে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হারানোর সেই দুঃসহ স্মৃতি আমাদের মনে যে বেদনার সৃষ্টি করে, আমরা সেটিকে অনুপ্রেরণা হিসেবে উপলব্ধি করি। তিনি বেঁচে আছেন বাঙালির হৃদয়ে এবং চিরকালই বেঁচে থাকবেন আমাদের হৃদয়ের মণিকোঠায়।