বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্ব রক্তের বন্ধনে রচিত

9

 

চসিক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশকে ভারতের ক‚টনৈতিক স্বীকৃতির অন্যতম কারণ ছিল ধর্মনিরপেক্ষ গণতন্ত্রের প্রতি দুই দেশের অঙ্গীকার। রক্তের বন্ধনে রচিত এই বন্ধুত্ব শত প্রতিকূলতার ভেতরও অটুট রয়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং ভারতের ক‚টনৈতিক স্বীকৃতির ৫১তম বার্ষিকী উপলক্ষে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, চট্টগ্রামের উদ্যোগে ‘মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ও বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক’ শীর্ষক আলোচনা সভা এবং লেখক-সাংবাদিক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহরিয়ার কবিরের ‘দুঃসময়ের বন্ধু’ চলচ্চিত্র প্রদর্শন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। গত মঙ্গলবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস. রহমান মিলনায়তনে সংগঠনের ৮ম জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি সদস্য সচিব লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি-নিউইয়র্কের সাধারণ সম্পাদক ও নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগ জয়েন্ট সেক্রেটারি স্বীকৃতি বড়ুয়া, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. আলা উদ্দিন, চসিকের ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গাজী শফিউল আজিম, চলচ্চিত্র নির্মাতা শৈবাল চৌধুরী। সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলার সম্মেলন প্রস্ততি কমিটির সদস্য সচিব মো. অলিদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন- সংগঠনের সাবেক সহ-সভাপতি মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী ও মো. হেলাল উদ্দিন, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা হাবিবুর রহমান তারেক, জেলা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম, এম.এ মান্নান শিমুল, অ্যাডভোকেট মো. সাহাব উদ্দিন, রুবেল চৌধুরী, রাজীব চৌধুরী রাজু, সুচিত্রা গুহ টুম্পা, কানিজ ফাতেমা লিমা, অথৈ মজুমদার অনিন্দ্য, সাজ-সজ্জা উপ কমিটির আহŸায়ক হাজী মোহাম্মদ ইব্রাহিম ও সদস্য সচিব দেবাশীষ আচার্য্য, প্রকাশনা উপ-কমিটির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, অর্থ উপ-কমিটির সদস্য সচিব মো. সাজ্জাদ উদ্দিন প্রমুখ।