বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত

39

 

বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্র চট্টগ্রাম বিভাগীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৩ অক্টোবর দুপুরে নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক বলেন, যেকোনো কাজে লেগে থাকতে হবে। তবেই সফলতা আসবে। সাংবাদিকতায়ও নারীদের লেগে থাকতে হবে। অন্যান্য সময়ের থেকে এখন অনেক হাউজে নারী সাংবাদিকের অংশগ্রহণ বেড়েছে। সেই সংখ্যা আরও বাড়াতে হবে।
উদ্বোধকের বক্তব্যে বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্র (বিএনএসকে) সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু বলেন, সবাই বলছেন নারী সাংবাদিক কেন্দ্র আলাদা করে গঠন করা হয়েছে কেন। নারী-পুরুষ সকলে সাংবাদিক। আমরা দেখতে পাই, অন্যান্য পেশা থেকে সাংবাদিকতা পেশার নারীর অংশগ্রহণ অনেক কম। এই ঝুঁকিপূর্ণ পেশায় নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর তাগিদ আমাদের। প্রতিটি হাউজে সেই উপস্থিতি যেন ৫০ শতাংশে উন্নীত করতে পারি। তার প্রচেষ্টা করছে বিএনএসকে। চট্টগ্রামের নারী সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশিক্ষণ, নিয়োগে স্থানীয় প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়াকে এগিয়ে আসার আহবান জানাই।
চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি সালাউদ্দিন রেজা বলেন, সাংবাদিকতা পেশা অনেক ঝুঁকিপূর্ণ পেশা। তাও নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ছে। কিন্তু তারা লেগে থাকতে চান না। এক পর্যায়ে তারা ঝরে যান। আমরা চাই এই মহান পেশায় নারীদের সাংবাদিকদের অংশগ্রহণ বাড়ুক।
চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক বলেন, নারী-পুরুষ সাংবাদিক বলে কিছু নেই। দেশের অন্যান্য বিভাগ এর মতো চট্টগ্রামে নারী সাংবাদিক বাড়ছে। নারীরা সব ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে আরও বেশি চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। বর্তমানে নারী সাংবাদিকদের আটকানোর কেউ নেই। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দীপ্ত টিভির চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান লতিফা আনসারী রুনা এবং দৈনিক বাংলা চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান ডেইজি মওদুদ। এ সময় বিএনএসকে এর চট্টগ্রাম বিভাগীয় ১১ সদস্যর একটি কমিটির ঘোষণা করা হয়। কার্য নির্বাহী কমিটির সভাপতি ডেইজী মউদুদ, সহ-সভাপতি শামীম আরা লুসি, ইয়াসমিন রীমা, সাধারণ সম্পাদক লতিফা আনসারী রুনা, যুগ্ম সম্পাদক চিংমেপ্রæ মারমা, সাংগঠনিক সম্পাদক ফেরদৌস লিপি, অর্থ সম্পাদক শারমিন সুমি, প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক নিলা চাকমা, সদস্য ইয়াসমিন ইউসুফ, আসমা বিথি, মরিয়ম জাহান মুন্নি, মারজান আক্তার। বিজ্ঞপ্তি