বাঁশখালীতে আবারও সেরা মাস্টার নজির আহমদ কলেজ

175

বাঁশখালীতে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে বরাবরের মতো এবারো সেরা হয়েছে মাস্টার নজির আহমদ বিশ^বিদ্যালয় কলেজে। এ কলেজের ১৮২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ১৫৬ জন। পাসের হার ৮৫.৭১ শতাংশ। কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ২৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৮ জন, মানবিক বিভাগের ১০৪ জনের মধ্যে ৮৪ জন ও ব্যবসায় বিভাগে ৪৯ জনের মধ্যে ৪৪ জন পরীক্ষার্থী কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়েছেন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন চার শিক্ষার্থী। গ্রামাঞ্চলে শিক্ষা বিস্তারে কলেজটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে।
নাপোড়া গ্রামের প্রখ্যাত মাস্টার নজির আহমদ ট্রাস্টের সার্বিক তত্ত¡াবধান ও কলেজ শিক্ষকদের একাগ্রতার কারণেই কলেজটির এমন ঈর্ষণীয় সাফল্য অর্জিত হয়েছে বলে মনে করছেন শিক্ষার্থীরা। কলেজের এমন সাফল্যে মাস্টার নজির আহমদ ট্রাস্টের সদস্য সচিব মুজিবুর রহমান সিআইপি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। তিনি আগামীতেও এমন ফলাফল অর্জনে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের আন্তরিকতা এবং শিক্ষকদের অক্লান্ত পরিশ্রম অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, ছয়টি কলেজের মধ্যে মাস্টার নজির আহমদ বিশ^বিদ্যালয় কলেজ ফলাফলে সেরা হয়েছে। অন্যান্য কলেজের মধ্যে পশ্চিম বাঁশখালী উপকূলীয় ডিগ্রি কলেজের ৩০৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৯২ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। পাসের হার ৬২.১৪। বাঁশখালী গার্লস ডিগ্রি কলেজে ১৮৭ জনের মধ্যে ১০৬ জন পরীক্ষার্থী পাস করেছেন। পাসের হার ৫৬.৬৮। এ কলেজে একজন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছেন। আলাওল ডিগ্রি কলেজে ৫৩২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২৮৫ জন। পাসের হার ৫৩.৫৭। বাঁশখালী ডিগ্রি কলেজে ৫৫৪ পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২২৩ জন। পাসের হার ৪০.২৫। হাজীগাঁও বরুমছড়া স্কুল এন্ড কলেজে ২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ৯ জন। পাসের হার ৩৫.৬২। ছয়টি কলেজ মিলিয়ে ১৭৯০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ৯৭১ জন। পাসের হার ৫৪.২৪। জিপিএ-৫ পেয়েছেন পাঁচজন।
আলিম পরীক্ষায় উপজেলার ১১টি প্রতিষ্ঠানের ৫৭০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ৫৪১ জন। পাসের হার ৯৪.৯১। জিপিএ-৫ পেয়েছেন তিনজন। চাঁদপুর কাদেরীয়া আলীম মাদ্রাসায় পাসের হার শতভাগ। এ মাদ্রাসায় ২৬ জনের মধ্যে ২৬ জনই পাস করেছেন। এছাড়াও আহমদিয়া ডলমপীর (র.) আলিম মাদ্রাসায় ৩৩ জনের মধ্যে ২৯ জন, পুকুরিয়া আনসারুল উলুম মাদ্রাসায় ৪৬ জনের মধ্যে ৪৫ জন, পুঁইছড়ি ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় ৮৩ জনের মধ্যে ৮১ জন, রঙ্গিয়াঘোনা মনছুরিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় ৩৪ জনের মধ্যে ৩১ জন, বাঁশখালী হামেদিয়া রহিমা ফাজিল মাদ্রাসায় ৩২ জনের মধ্যে ২৯ জন, পশ্চিম বাঁশখালী গন্ডামারা রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় ৩১ জনের মধ্যে ২৯ জন, জলদী হোসাইনীয়া ফাজিল মাদ্রাসায় ১২৯ জনের মধ্যে ১২০ জন, যাতানুরাইন ফাজিল মাদ্রাসায় ৩৭ জনের মধ্যে ৩৬ জন, পালেগ্রাম হাকিমিয়া শাহ আলিম মাদ্রাসায় ৬৩ জনের মধ্যে ৬০ জন ও শেখেরখীল ডিএসএ আলিম মাদ্রাসায় ৫৬ জনের মধ্যে ৫৫ জন পরীক্ষার্থী পাস করেছেন। পুঁইছড়ি ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় একজন ও রঙ্গিয়াঘোনা মনছুরিয়া ফাযিল মাদ্রাসায় দুইজন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছেন।