বহুমাত্রিক প্রতিভার অনির্বাণ বাতি শিখা শেখ কামাল

5

পূর্বদেশ ডেস্ক

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠপুত্র, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংগঠক, আবাহনীর প্রতিষ্ঠাতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে গতকাল খতমে কোরআন, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল, মুনাজাত, তাঁর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) : সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠপুত্র শেখ কামাল ছিলেন অদম্য, বিন¤্র ও সংস্কৃতিবান। তিনি ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী ও সংগঠক হিসেবে ছয়দফা, এগার দফা ও ৬৯’র অগ্নিঝরা গণআন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। সেসব আন্দোলনে শেখ কামালের উপস্থিতি আজও আমাদের মাঝে উৎসাহ সৃষ্টি করে। শেখ কামাল পড়ালেখার পাশাপাশি ক্রীড়া, সংস্কৃতি, সংগীত চর্চা, অভিনয়, বিতর্ক ও উপস্থিত বক্তৃতায় ছিলেন পারদর্শী। বাংলা ও বাঙালি সংস্কৃতিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে ভূমিকা রেখেছিলেন। অসামন্য সাংগঠনিক দক্ষতার অধিকারী শেখ কামাল মুক্তিযুদ্ধেও বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন।
নগর ভবনের কনফারেন্স রুমে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
চসিক’র সচিব খালেদ মাহমুদের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমাজ কল্যাণ স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর আবদুস সালাম মাসুম। উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক, সাহেদ ইকবাল বাবু, হাসান মুরাদ বিপ্লব, আবুল হাসনাত মোহাম্মদ বেলাল, শৈবাল দাশ সুমন, পুলক খাস্তগীর, নুর মোস্তফা টিনু, সংরক্ষিত কাউন্সিলর তসলিমা বেগম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাসেম, শিক্ষা কর্মকর্তা উজালা রাণী চাকমা, উপ-সচিব আশেক রসুল চৌধুরী টিপু প্রমুখ। মিলাদ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন সিটি কর্পোরেশনের মাদ্রাসা পরিদর্শক মাওলানা মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী।
সিটি মেয়র আরো বলেন, জাতির পিতার সন্তান হওয়া সত্ত্বেও সরকারি কোন পদ-পদবি ও ক্ষমতার প্রতি তাঁর আকর্ষণ ছিল না। শেখ কামাল স্বপ্ন দেখেছিলেন ক্রীড়াঙ্গনে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশকে পরিচিত করা। তিনি আমাদের মাঝে চিরঞ্জীব-চিরভাস্বর হয়ে আছেন। আমাদের তরুণ সমাজ শেখ কামালের জীবন থেকে অনেক শিক্ষা গ্রহণ করতে পারেন।
মেয়র শেখ কামালসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন। মিলাদ ও আলোচনা শেষে মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী, কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মাচারীদের সাথে নিয়ে সিটি শহীদ শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
মহানগর আওয়ামী লীগ : নগরীর দারুল ফজল মার্কেটে দলীয় কার্যালয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে খতমে কোরআন, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
পরে আলোচনা সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বহুমাত্রিক প্রতিভা এবং সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়াঙ্গনে সৃজনশীল কর্মকান্ড এবং বৈপ্লবিক চারিত্রিক বৈশিষ্ট ও গুণের অধিকারী ছিলেন শেখ কামাল। তিনি অনন্য ব্যক্তিত্বের অধিকারী ও চিরঞ্জীব হয়ে থাকবেন। এ সম্ভাবনাময় তরুণ গুণীব্যক্তিত্ব বিকশিত হওয়ার আগেই তাঁর প্রাণ কেড়ে নেয় ঘাতকরা। ঘাতকদের প্রেতাত্মা ও একাত্তরের পরাজিত শক্তির দোসরদের কাছে আমরা কেউ নিরাপদ নই।
তিনি আরো বলেন, শেখ কামালের মত অনেক প্রতিভাধর গুণীদের যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করতেন, ৭৫ পরবর্তী শাসকগোষ্ঠী একুশ বছরে অকালে তাদের অনেকের প্রাণ হরণ করেছে।
মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, শেখ কামাল বাংলাদেশের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের শুদ্ধতম অনির্বাণ শিখা। শেখ কামাল এই অঙ্গনে আধুনিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক শৈলীর প্রবর্তক। মাত্র ২৬ বছর বয়সে ঘাতকরা সপরিবারে তাঁর জীবন প্রদীপ নিভিয়ে দেয়া হলেও প্রজন্ম পরম্পরায় তিনি সকলের অন্তরে থেকে যাবেন।
এতে আরও বক্তব্য রাখেন সহ সভাপতি আলহাজ নঈম উদ্দিন চৌধুরী, এডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, আলহাজ খোরশেদ আলম সুজন, জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, উপদেষ্টা শফর আলী, সম্পাদকমÐলীর সদস্য আলহাজ আবদুচ ছালাম, নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, আলহাজ শফিকুল ইসলাম ফারুক, সৈয়দ হাসান মাহমুদ শমসের, এডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মশিউর রহমান চৌধুরী, হাজী মোহাম্মদ হোসেন, হাজী জহুর আহমদ, দিদারুল আলম চৌধুরী, জালাল উদ্দিন ইকবাল, আবদুল আহাদ, আবু তাহের, শহীদুল আলম, নির্বাহী সদস্য আলহাজ পেয়ার মোহাম্মদ, কামরুল হাসান বুলু, এড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, সৈয়দ আমিনুল হক, বখতেয়ার উদ্দিন খান, মহব্বত আলী খান, মোহাম্মদ জাবেদ, হাজী বেলাল আহমেদ, মোরশেদ আকতার চৌধুরী।
শহীদ শেখ কামালের রুহের মাগফেরাত করে খতমে কোরআন, দোয়া মাহফিল শেষে মুনাজাত পরিচালনা করেন দারুল ফজল মার্কেট মসজিদের ইমাম আলহাজ মাওলানা ফজল কবির।
উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ : উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে গতকাল সংগঠনের দোস্তবিল্ডিংয়ের কার্যালয়ে সিটি কলেজ জামে মসজিদের খতিব আলহাজ মাওলানা মো. আবু সাঈদ নুরীর পরিচালনায় দোয়া মাহফিল ও মোনাজাত হয়।
এতে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক শেখ মো আতাউর রহমান, সহ সভাপতি এড. ফখরুদ্দিন চৌধুরী, মো. আবুল কালাম আজাদ, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য দেবাশীষ পালিত, জসিম উদ্দিন শাহ, মহিউদ্দিন বাবলু, নজরুল ইসলাম তালুকদার, জাফর আহমেদ, প্রদীপ চক্রবত্তী, নাজিম উদ্দিন তালুকদার, ইঞ্জিনিয়ার মেজবাহ উল আলম লাভলু, আ সা ম ইয়াছিন মাহমুদ, কার্যনির্বাহী সদস্য বেদারুল আলম চৌধুরী বেদার, মো. ইদ্রিচ, মো. সেলিম উদ্দিন, গোলাম রব্বানী, মহিউদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, যুবলীগ নেতা রাশেদ খান মেনন প্রমুখ।
দোয়া মাহফিল পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনা সবায় বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক শেখ মো. আতাউর রহমান। তিনি বলেন, শহীদ শেখ কামাল একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তিনি এদেশের ক্রীড়াঙ্গণে যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করেন। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, ততদিন এদেশের মানুষের হৃদয়ে তিনি অমর হয়ে থাকবেন।