প্রেমিকাকে নিয়ে প্রবাসের বদলে শ্রীঘরে জামাল

86

পাঁচলাইশ থানার মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে চুরি যাওয়া স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকাসহ এক ফ্ল্যাট বাসার কেয়ারটেকার মো. জামাল উদ্দীন (৩০)’কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এসময় তার কাছ থেকে চুরি যাওয়া ২০ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৯হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। আজ তাকে আদালতে সৌপর্দ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
জানা যায়, মোহাম্মদপুর এয়ারবেল টাওয়ারের ৫ম তলায় বাসায় থাকেন প্রবাসী শহিদুল আলম। সে বাসার কেয়ারটেকার ছিলেন জামাল উদ্দিন। জামাল উদ্দিন বিবাহিত হলেও অন্য এক তরুনীর সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এ প্রেমিকাকে নিয়ে দেশান্তরী হতে টাকার প্রয়োজন হলে জামাল উদ্দিন বেকায়দায় পড়ে যান। এরমধ্যে গত ১৯জুলাই গৃহকর্তা শহিদুল আলম জামাল উদ্দিনকে ২০ভরি স্বর্ণ দিয়ে সেগুলো বিক্রি করতে পাঠায়। স্বর্ণ ও আরো এক লক্ষ ২০ হাজার টাকা নিয়ে চম্পট দেয় জামাল।
এরমধ্যে প্রেমিকাকে নিয়ে পাসপোর্ট করতে পাঠায় চট্টগ্রামে। পুলিশও হন্য হয়ে খুঁজতে থাকে জামালকে। পলাতক থাকাবস্থায় পাঁচটি সিম ও তিনটি মোবাইল সেট ব্যবহার করে প্রেমিকা ও নিজস্ব লোকজনের সহিত যোগাযোগ রাখছিল জামাল। এরই সূত্র ধরে ফটিকছড়ি থানার ধর্মপুর এলাকা থেকে জামাল উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়।
পাঁচলাইশ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কাশেম ভ‚ঁইয়া বলেন, কথিত প্রেমিকাকে নিয়ে পালানোর কৌশল ভেস্তে দিয়ে চুরি করা মালামাল সহ জামালকে আটক করা হয়েছে। আগামীকাল তাকে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হবে। তিনি নগরবাসীকে বড় অংকের ক্যাশ টাকা ও মালামালের বিষয়ে কোন বাহক বা কেয়ারটেকারকে বিশ্বাস করার ক্ষেত্রে সর্তক থাকার অনুরোধ জানান।